ফনেটিক ইউনিজয়
প্রাচীন মিশরের গান
গীতি-ভাষান্তর : সিদ্ধার্থ মিত্র

আমন-রে, ওহ!

উত্তর আফ্রিকায়, কায়রোর দিকে প্রবাহিত
ওই নীল নদ কিনারের উর্বর বদ্বীপে
আমাদের পরিবার-রাজবংশ ছিল, এখন তো সবাই মমি
উঁচু-নিচু যেকোনো জাতের মিশরীয়গণ একসাথে
শাসন করেছি সরকার, আর প্রচার করেছি ধর্ম
আর আমাদের আত্মার জন্য ওরা বানিয়ে রেখেছে পিরামিড
আমরা সকলে মুশরিক
হায়ারোগ্লিফিক্স পড়ে দ্যাখো-

(অঙ্ক) আমাকে মুকুট দাও দুটো, আমি শাসন করবো তোমাকে
নয় বছর বয়স থেকে ছিলাম রাজা
হ্যাঁ, আমি সেই তুতেনখামুন, আমি ফারাও তুতেনখামুন, আমি সেই তুতেনখামুন

শাসন করতে দিও না সে- আখেয়াঁতোঁকে
শুধু প্রার্থনা করো সেই দেবতাদের কাছে এতদিন যাদের কাছেই করেছো
হ্যাঁ, আমি সেই তুতেনখামুন, আমি ফারাও তুতেনখামুন, আমি সেই তুতেনখামুন

নীল নদতীরে কিছু ফসল ফলাও উন্নত
ভালো কোনো কাজ নাও, বাণিজ্য সাজাও মুনাফার
প্রযুক্তি বানাও আর জ্যামিতি শেখো আর শেখো অস্ত্রো পচার
হায়, আমার পঞ্জিকা, একজন লেখক বানাও
হ্যাঁ, তাঁকে দাও লিখবার প্যাপিরাস খাতা
কারণ বন্যা, যে গ্রীষ্মে আসে; এছাড়া আমরা তো অভিশপ্ত
হ্যাঁ, হ্যাঁ, জিজ্ঞাসা করে দেখো অনুসারীদের

আমার পুরোহিত পাদ্রি দেবতাদের করে রেখেছে সন্তুষ্ট
আমার রক্তিম ভূমি যা মূলত কালো- কারণ আমিই বলেছি তোমায়-
আমি সেই তুতেনখামুন, আমি ফারাও তুতেনখামুন, আমি সেই তুতেনখামুন

আমি খুফুর মতন কোনো গির্জা তো করিনি তৈরি
আমার কবরই যেন স্বর্গীয় পরজন্ম আমার
কারণ আমি তুতেনখামুন, আমি ফারাও তুতেনখামুন, আমি সেই তুতেনখামুন

মহান রামসেস ছিল সেরা ফেরাউন
শত্রুরা চাইলেও আমরা তৈরি করি শান্তিচুক্তি
এক শক্ত রাজ্য গড়েছিলাম, কয়েক দশক আমি শাসন করেছি
কে এই তুত বাম রাজা?
সে কি কোনো নারী বা ক্রীতদাস-দাসী?
তাঁকে আমার হাজার সালাম
সে চাইলে আমার নৌকাটি চালাতে পারে
আমার শোবার ঘরে, আশেপাশে ঘুরতে পারে
চাইলে সে আমার গহনাও সাফ করে রাখতে পারে,
আর আমার তৃষ্ণা পেলে সে যেন আমাকেই অর্চনা করে
আহা হা হা হেই

হে আমার ওসিরিস! রানী হাতশাপ্সুতের মতো তোমাকে কিনে নেবো
পন্টের বাজারে সওদা করবো আমরা, আর তোমাকে দেখাবো আমি-
আমি সেই তুতেনখামুন, আমি ফারাও তুতেনখামুন, আমি সেই তুতেনখামুন

হিক্সোসের মতো তোমার রাজ্যে আমি ঢুকে পড়বো
তোমার ইতিহাস সমূলে ধ্বংস করবো আমি তুত্মোসের মতন
কারণ আমি তুতেনখামুন, আমি সেই তুতেনখামুন, আমি ফারাও তুতেনখামুন।

Disconnect