যত বড় নেতাই হোক অপকর্ম করলে ছাড় পাবে না: কাদের

বিআরটিসির চলমান ও ভবিষ্যৎ কার্যক্রম সম্পর্কে দিক নির্দেশনা ও মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ছবি: সংগৃহীত

বিআরটিসির চলমান ও ভবিষ্যৎ কার্যক্রম সম্পর্কে দিক নির্দেশনা ও মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ছবি: সংগৃহীত

ছাত্রলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে ওঠা দুর্নীতির অভিযোগ প্রসঙ্গে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘যত বড় প্রভাবশালী নেতাই হোক, দলের ভেতরে যারা অপকর্ম করবে, দুর্নীতিতে জড়িত থাকবে, কোনো অবস্থাতেই তাদের ছাড় দেওয়া হবে না।

রংপুর-৩ আসনে উপ নির্বাচন বিষয়ে তিনি বলেন, জাতীয় পার্টিকে আসনটি ছেড়ে দেওয়ার বিষয়টি বিবেচনায় রয়েছে।

রাজধানীল মতিঝিলে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশন (বিআরটিসি) ভবনের সম্মেলন কক্ষে আজ সোমবার বিআরটিসির চলমান ও ভবিষ্যৎ কার্যক্রম সম্পর্কে দিক নির্দেশনা ও মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন তিনি।

কাদের বলেন, ‘যেসব নেতার বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ প্রধানমন্ত্রীর কাছে গেছে, তারা কেউই ছাড় পাবে না। তবে সবার বিরুদ্ধেই দলীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে না, অনেকের বিরুদ্ধে প্রশাসনিকভাবেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছেন। প্রয়োজনে সাংগঠনিক ব্যবস্থার বাইরে প্রশাসনিক ব্যবস্থাও নেওয়া হবে।’

তিনি বলেন, ‘নেতাকর্মীদের অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নিজস্ব সংস্থার প্রতিবেদন রয়েছে। পাশাপাশি বিভিন্ন সংস্থার প্রতিবেদনও প্রধানমন্ত্রীর কাছে রয়েছে। দলের নেতাকর্মীদের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নিজস্ব সেল ও গোয়েন্দা সংস্থা থেকে বিভিন্ন অভিযোগ আসছে, সেসব অভিযোগের বিষয় খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’

ছাত্রলীগের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, 'ছাত্রলীগের কমিটি প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন। বিষয়টি তিনিই দেখছেন। এ বিষয়ে আমার কিছু বলার নেই। তিনি নতুন কমিটি দিয়েছেন এবং আগের কমিটির দু’জনকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। ছাত্রলীগের ব্যাপারে পরবর্তী পদক্ষেপ কী হবে, তা প্রধানমন্ত্রীই ভালো জানেন।’

ছাত্রলীগের মত যুবলীগের কমিটিও ভেঙে দেওয়া হবে কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘যুবলীগ নিজেরাই নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্ত করতে একটি সেল গঠন করেছে। তারা নিজেরাই শোধরানোর পথ বেছে নিয়েছে।’  

সেতুমন্ত্রী ব‌লেন, ‘রংপুর-৩ আসন জাতীয় পার্টিকে ছেড়ে দেওয়ার বিষয়টি বিবেচনায় আছে। আমরা মাঠ পর্যায়ে পর্যবেক্ষণ করছি, এরপর সিদ্ধান্ত নেব।’

রংপুর-৩ আসনের উপনির্বাচনে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রাজুর নাম ঘোষণা করেছে আওয়ামী লীগ। গত ১৪ জুলাই জাপা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুর পর রংপুর-৩ আসন শূন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

তফসিল অনুযায়ী, রংপুর-৩ আসনে মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন ৯ সেপ্টেম্বর, বাছাইয়ের দিন ১১ সেপ্টেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ১৬ সেপ্টেম্বর এবং ভোটগ্রহণ ৫ অক্টোবর। ওইদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

মন্তব্য করুন

সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার

© 2019 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh