পাপুলের সংশ্লিষ্টতায় কুয়েতের সরকারি কর্মকর্তা-রাজনীতিক গ্রেফতার

মানবপাচারের অভিযোগে কুয়েতে গ্রেফতার লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য শহীদ ইসলাম পাপুলের সাথে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে দেশটির শ্রম বিভাগের এক পরিচালক এবং একজন রাজনীতিবিদকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

দৈনিক আল-রাইয়ের খবরে জানানো হয়, ওই দুজনকে ২১ দিন আটক রাখার আদেশ দিয়ে কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পাবলিক প্রসিকিউটররা জানান, কুয়েতের যে দুই এমপির বিরুদ্ধে পাপুলকে বেআইনি কাজে সহযোগিতা এবং অর্থ পাচারে জড়িত থাকার আনুষ্ঠানিক অভিযোগ আনা হয়েছে, তাদের বিচারের মুখোমুখি করতে ’সংসদীয় ইমিউনিটি’ প্রত্যাহার করা হয়েছে।

সালাহ খুরশিদ ও সাদুন হাম্মাদ নামের ওই দুই এমপির বিরুদ্ধে গত ২৭ জুন আনুষ্ঠানিক অভিযোগ এনেছিল পাবলিক প্রসিকিউটরের অফিস। 

আল-কাবাস বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, ওই দুই এমপির ’সংসদীয় ইমিউনিটি’ প্রত্যাহার করার আবেদন অনুমোদন করেছে কুয়েতের সংসদীয় বিচার বিষয়ক কমিটি।

গত ৭ জুন মানব পাচার, ভিসা জালিয়াতি ও অর্থপাচারের অভিযোগে এমপি পাপুলকে গ্রেফতার করে কুয়েতের পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে পাপুল জানিয়েছেন, কীভাবে তিনি কুয়েতের প্রভাবশালী সরকারি কর্মকর্তাদের সহায়তায় মানবপাচার ও অর্থপাচার করতেন। বর্তমানে পাপুল কুয়েতের কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন। আগামী ৬ জুলাই পাপুলের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ গঠনের কথা রয়েছে। অপরাধ প্রমাণ হলে পাপুলের পাঁচ থেকে ১৫ বছরের কারাদণ্ড ও জরিমানা হতে পারে।

পাপুল ২০১৮ সালে লক্ষ্মীপুর-২ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জাতীয় পার্টিকে আসনটি ছেড়ে দিয়েছিল। কিন্তু জাতীয় পার্টির প্রার্থী শেষ মূহূর্তে সরে দাঁড়ালে বিএনপিকে ঠেকাতে স্থানীয় আওয়ামী লীগ পাপুলের পক্ষে কাজ করে। এমপি হওয়ার পর স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যদের কোটায় পাওয়া সংরক্ষিত একটি আসনে তার স্ত্রী সেলিনাকে এমপি করে আনেন পাপুল।

মন্তব্য করুন

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh