ফনেটিক ইউনিজয়
ঠাকুরগাঁওয়ে ইটের গাড়িতে কাঁচা রাস্তা বেহাল
আব্দুল আউয়াল, ঠাকুরগাঁও

আইনে গ্রামীণ সড়ক দিয়ে ইট বা ইটের কাঁচামাল পরিবহনে নিধেষাজ্ঞা থাকলেও ইটভাটার মালিকেরা তা মানছেন না। ইট ও ইটের কাঁচামাল নিয়ে প্রতিদিন ট্রাক্টর চলাচলের কারণে ঠাকুরগাঁওয়ের গ্রামীণ রাস্তাগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। সড়কগুলো ভেঙে গেছে। সৃষ্টি হয়েছে ছোট-বড় গর্তের। এ কারণে এসব সড়ক দিয়ে চলাচলে দুর্ভোগ পোহাচ্ছে স্থানীয়রা।
ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০১৩-এর ৫ নম্বর ধারার মাটির ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ ও হ্রাসকরণ অংশের ৪ নম্বর উপধারা অনুযায়ী, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) নির্মিত উপজেলা বা ইউনিয়ন বা গ্রামীণ সড়ক ব্যবহার করে কোনো ব্যক্তি ভারী যানবাহন দ্বারা ইট বা ইটের কাঁচামাল পরিবহন করতে পারবেন না। এ আইন লঙ্ঘন করলে অনধিক এক লাখ টাকা জরিমানা করা হবে।
ঠাকুরগাঁও এলজিইডি সূত্রে জানা গেছে, ঠাকুরগাঁও জেলার উপজেলা পর্যায়ে এলজিইডির ৩৮১ কিলোমিটার, ইউনিয়ন পর্যায়ে ২১১ কিলোমিটার ও গ্রামীণ পর্যায়ে ক শ্রেণির ১২৯ কিলোমিটার ও খ শ্রেণির ৫৪ কিলোমিটার পাকা সড়ক রয়েছে। কমবেশি সব সড়ক ব্যবহার করে ইটের কাঁচামাল ও ইট পরিবহন করছে ইটভাটা কর্তৃপক্ষ।
সদর উপজেলার আকচা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, এলজিইডির সড়ক ঘেঁষে স্থাপিত হয়েছে মেসার্স নীড় ব্রিকস, এমএবি ব্রিকস, এসএমবি ব্রিকস ও এএমবি ব্রিকস।
এ ছাড়া সদর উপজেলার রুহিয়া সড়কের বেড়িবাঁধ এলাকায় এমএবি ব্রিকস-২, ফাঁড়াবাড়ি সড়কে এমএসবি ব্রিকস, আরইউএস ব্রিকস, এসকে ব্রিকস, নীল সাগর ব্রিকসসহ আটটি ভাটা, নারগুন এলাকায় এইচবিএস ব্রিকস ও এমবিএম ব্রিকসসহ জেলায় ৬৭টি ইটভাটা রয়েছে। গ্রামীণ সড়ক ব্যবহার করে এসব ভাটার ইট ও ইট তৈরির কাঁচামাল ভারী যানবাহনে পরিবহন করা হচ্ছে।

Disconnect