ফনেটিক ইউনিজয়
বম ভাষার অভিধান উন্মোচন
উসিথোয়াই মারমা, বান্দরবান

বান্দরবানে প্রথমবারের মতো বম ভাষার অভিধান প্রকাশ করা হয়েছে। বম থেকে ইংরেজি ও বাংলা ভাষায় অভিধানটি উন্মোচন করেন জেলা পরিষদের সদস্য এবং বম সোস্যাল কাউন্সিলের সভাপতি জুয়েল বম। ৫ নভেম্বর সকালে শহরে উজানী পাড়ায় বমদের একটি কমিউনিটি হলে অভিধানটি উন্মোচন করা হয়।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জুয়েল বম বলেন, যেকোনো ভাষায় অভিধান তৈরি গুরুত্বপূর্ণ একটি কাজ কিন্তু সহজ নয়। দীর্ঘদিন কঠোর পরিশ্রমে করা তৈরি এ অভিধানের মাধ্যমে বম সম্প্রদায়ের শিক্ষার্থীরা উপকৃত হবে।
অভিধান বই উন্মোচন অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, বমদের অনেক শব্দ বিল্প্তু হয়ে গেছে। আর যা আছে নতুন প্রজন্মরা জানেই না। ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কথা ভেবে এ উদ্যোগটি নিতে হয়েছে। অভিধানটি তৈরি করতে তাঁর ১২ বছর সময় লেগেছে।
বম সোস্যাল কাউন্সিলের সাবেক সভাপতি জুয়ামলিয়াম আমলাই বলেন, নিজেদের ভাষা চর্চা করতে অভিধানের বিকল্প নেই। বইটি শুধু বম সম্প্রদায়ের নয়, অন্যান্য ভাষাভাষী মানুষেরও কাজে লাগবে।
উন্মোচন অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের সদস্য সিং ইয়ং ম্রো. ফিলিপ ত্রিপুরা, জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি অংচমং মারমা ও লালচোংনু লুসাই। এ ছাড়া বম সোস্যাল কাউন্সিলের সাবেক ও বর্তমান সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন।
বইয়ের লেখক জুয়ারলেথাং কে. রেমা। তিনি ভারতের মহারাষ্ট্রে ইউনিয়ন বিবলিক্যাল সেমিনারি থেকে ১৯৮৮ সালে ব্যাচেলর ডিগ্রি, ’৯৫ সালে একই প্রতিষ্ঠান থেকে ধর্মতত্ত্বের ওপর ডিগ্রি নিয়েছেন। এরপর ২০০৯ বাংলাদেশে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শান্ত-মারিয়াম থেকে ম্যাটার অব সোস্যাল সায়েন্সের ওপর মাস্টার ডিগ্রি নেন।
উল্লেখ্য, পার্বত্য চট্টগ্রামে ১১টি নৃগোষ্ঠীর মধ্যে বমদের বসবাস একমাত্র বান্দরবান জেলায়। তাদের জনসংখ্যায় প্রায় ১২ হাজার।

Disconnect