ফনেটিক ইউনিজয়
ভোলাহাটে রেশমের বাম্পার ফলন
আখতারুজ্জামান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ

একসময় চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাট রেশম, আম আর লাক্ষার জন্য বিখ্যাত ছিল। এ তিন ফসলে উপজেলার অর্থনীতির চাকা ঘুরিয়ে গিয়েছিল সেই সময়। কিন্তু সময়ের পরিবর্তনে লাক্ষা চাষ বিলুপ্তির পথে। বিদেশ থেকে রেশম আমদানি, রোগবালাইয়ে আক্রান্ত হয়ে ব্যাপক ক্ষতি হওয়ার কারণে রেশম চাষ থেকে নিজেদের গুটিয়ে নিয়েছেন অনেকেই। তারপরও উপজেলার অনেক এলাকায় এখনো রেশমের চাষ হচ্ছে।
রেশম বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, গত বন্যায় তুঁত জমি পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় চাষিরা ক্ষতির মুখে পড়েছেন। ফলে ১৪ হাজার রেশম ডিম চাষীদের‘ মাঝে বিতরণ করা সম্ভব হয়নি। ৭ হাজার রেশম ডিম ৭০ জন বসনীর মাঝে বিতরণ করা হয়েছে।
এ বিষয়ে রেশমচাষি সামিরুদ্দিন, তোফাজ্জল হোসেন, নবী উল ইসলাম নবী জানান, শীত মৌসুমে রেশমের বাম্পার ফল হয়েছে। গত বছরের প্রাকৃতিক দুর্যোগে পড়ে সর্বস্ব হারিয়েছিলেন উপজেলার রেশমচাষিরা। বন্যার কারণে তুঁত জমি পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় অনেকে রেশম চাষ করতে পারেনি। তবে যাঁরা রেশম চাষ করেছেন, তাঁরা সবাই বাম্পার ফলন পেয়েছেন। স্থানীয় রেশম বোর্ডের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা প্রত্যেক চাষীর বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে পরামর্শ দিয়েছেন। তাঁদের পরামর্শে রেশমের বাম্পার ফলন হয়েছে।
এ বিষয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা রেশম সম্প্রসারণের সহকারী পরিচালক কাজী মাসুদ রানা জানান, এ ধারা অব্যাহত থাকলে আর কোনো প্রকার প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে রেশমের হারানো ঐতিহ্য আবার ফিরে পাওয়া সম্ভব। সেই সঙ্গে রেশমচাষিরা দ্রুত নিজেদের স্বাবলম্বী করে গড়ে তুলতে সক্ষম হবেন।

Disconnect