ফনেটিক ইউনিজয়
সুলতান স্বর্ণপদক পেলেন ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী
উজ্জ্বল রায়, নড়াইল

নড়াইলে এবার এস এম সুলতান স্বর্ণপদক পেয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা ও ভাস্কর্যশিল্পী ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী। ৪ জানুয়ারি সন্ধ্যায় সুলতান মঞ্চে প্রধান অতিথি যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার এ স্বর্ণপদক প্রদান করেন। তবে ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী বর্তমানে অসুস্থ থাকায় তাঁর প্রতিনিধির হাতে এ পদক তুলে দেওয়া হয়। এদিন রাতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শেষ হয় ১০ দিনব্যাপী সুলতান মেলা।
সুলতান পদকপ্রাপ্ত শিল্পী ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী ১৯৪৭ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি খুলনায় জন্মগ্রহণ করেন। মা-বাবার ১১ সন্তানের মধ্যে তিনি ছিলেন সবার বড়। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে তাঁর জীবনে ঘটে দুর্বিষহ ঘটনা। পাক বাহিনীর হাতে অমানবিক নির্যাতনের শিকার হন তিনি। যুদ্ধ শেষে বিজয় আসে ঠিকই কিন্তু বীরাঙ্গনাদের জীবনে স্বাধীন দেশে শান্তি আসে না। নানা অপমান সহ্য করে কঠোর সংগ্রাম করতে থাকেন তিনি। শেষ বয়সে এসে নানা শিল্পকর্ম সৃষ্টিতে মনোনিবেশ করেন। মূলত ঘর কীভাবে দামি জিনিসের পরিবর্তে সহজলভ্য জিনিস দিয়ে সাজানো যায়, তার সন্ধান করা থেকেই তাঁর শিল্পচর্চার শুরু। তিনি শিল্পকলায় অসামান্য অবদানের জন্য ২০১০ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা পদকে ভূষিত হন। এ ছাড়া মানবাধিকার পুরস্কারসহ ছোট-বড় একাধিক পদকে ভূষিত হন এই শিল্পী।
বিশ্ববরেণ্য চিত্রশিল্পী এস এম সুলতানের ৯৩তম জয়ন্তী উপলক্ষে নড়াইল জেলা প্রশাসন ও এস এম সুলতান ফাউন্ডেশনের আয়োজনে নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজের সুলতান মঞ্চ চত্বরে ১০ দিনব্যাপী মেলা গত ২৬ ডিসেম্বর থেকে ৪ জানুয়ারি পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানমালার মধ্যে ছিল চিত্র প্রদর্শনী, লাঠিখেলা, কুস্তি, হাডুডু, ভলিবল, হ্যান্ডবল, দড়ি টানাটানি, ষাঁড়ের লড়াই, আর্চারীসহ বিভিন্ন খেলাধুলা, শিল্পী এস এম সুলতানসহ বিভিন্ন গুণী শিল্পীর জীবন ও কর্ম নিয়ে সেমিনার এবং নড়াইলের ৩৪টি সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ দেশের দেশের বিভিন্ন এলাকার শিল্পীদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

Disconnect