ফনেটিক ইউনিজয়
জলঢাকায় চেয়ারম্যানের সাংবাদিক সম্মেলন
এরশাদ আলম, জলঢাকা

নীলফামারীর জলঢাকায় সম্প্রতি উপজেলা পরিষদের দুই বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সৈয়দ আলী ও তাঁর পরিবারকে নিয়ে সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও যুবলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর প্রকাশ্যে হত্যার হুমকি ও অশালীন, কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দেওয়ার প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সৈয়দ আলী। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, এস আলী গ্রুপের এমডি শরিফুল ইসলাম বাবু, জামাতা আতিকুজ্জামান বাবুসহ উপজেলায় কর্মরত সকল প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রোনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।
গত ৩০ ডিসেম্বর দুপুরে চেয়ারম্যানের নিজ বাসভবনে সাংবাদিক সম্মেলনে আলহাজ্ব সৈয়দ আলী লিখিত বক্তব্যে বলেন, উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক যুবলীগ নেতা আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর নিজের নৈতিক অধঃপতনের কারণে আমার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে প্রকাশ্যে হত্যার হুমকিসহ আমার বিরুদ্ধে অসংলগ্ন ও উদ্দেশ্যমূলক বক্তব্য দিয়ে সমাবেশ করে জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছেন। যা সম্পূর্ণরূপে বানোয়াট ও ভিক্তিহীন।
তিনি আরও বলেন, আমার বিরুদ্ধে গত ২৮ ডিসেম্বর নীলফামারীর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে জাতীয় পতাকা অবমাননার অভিযোগে রাষ্ট্রদ্রোহিতার যে পিটিশন মামলা করেছেন তা সম্পূর্ণরূপে মিথ্যা ও বানোয়াট। আমাকে ভালবেসে আমার সমর্থকরা লাল ও সবুজ রং ব্যবহার করে যে পোষ্টার ও ফেষ্টুন লাগিয়ে প্রচার করেছে তা জাতীয় পতাকার সঙ্গে সংশি¬ষ্ট নয়। তাই কোনভাবেই জাতীয় পতাকার অবমাননা হয়নি। এছাড়াও অযৌক্তিকভাবে আমার বিরুদ্ধে যে সব অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন তা আজগুবি ও ভূয়া।
সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি উপজেলা বিএনপি’র দীর্ঘদিন ধরে সাধারণ সম্পাদক ছিলাম। আমি কখনও জামায়াত করিনি বা যোগদানও করিনি।
এ ব্যাপারে আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুরের সাথে মোবাইলে কথা হলে তিনি বলেন, সৈয়দ আলী একজন স্বাধীনতা বিরোধী, তাঁর বিরুদ্ধে আমার আন্দোলন চলবে।

Disconnect