ফনেটিক ইউনিজয়
ময়মনসিংহে যাত্রা উৎসব
ইলিয়াছ আহমদ, ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহে শেষ হলো ৮ দিনব্যাপী নির্মল যাত্রা পালা। যাত্রাকে কেন্দ্র করে সাধারণ মানুষের মধ্যে বিরাজ করেছিল বাড়তি আনন্দ। তবে আশানুরূপ দর্শক না পাওয়ায় কিছুটা হতাশ আয়োজকেরা। আর গ্রাম বাংলার হারানো ঐতিহ্যকে গ্রামগঞ্জে ছড়িয়ে দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তাঁরা।
বাংলাদেশ যাত্রা উন্নয়ন পরিষদ, ময়মনসিংহ জেলা শাখার সভাপতি আবুল বাসার ফকির জানান, গত ২৩ ডিসেম্বর থেকে ময়মনসিংহ শহরের টাউনহল মাঠে ৮ দিনব্যাপী নির্মল যাত্রাপালা শুরু হয়। প্রতিদিন রাত ৮টা ৩১ মিনিট থেকে শুরু হয় যাত্রাপালার। প্রথম দিন থেকে ধারাবাহিকভাবে মঞ্চস্থ হয়েছে অনুসন্ধান, বাংলার মহানায়ক, সিন্ধুর দিয়ে কিনলাম, একটি গোলাপের মৃত্যু, নিচুতলার মানুষ, প্রেয়সী আনার কলি, চরিত্রহীন ও নবাব সিরাজউদ্দৌলা মঞ্চায়ন হয় এই উৎসবে। এই যাত্রা পালায় শহরের নারী, পুরুষ ও শিশুদের জন্য ছিল বাড়তি নিরাপত্তাব্যবস্থা। যাত্রায় লোকসমাগম বাড়ানোর জন্য প্রতিদিনই মাইকিং করা হয়েছে। যাত্রাপালা উপভোগ করতে আসা দর্শকদের টিকিটের প্রবেশ মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছিল ১০০ থেকে ২০০ টাকা। প্রতিদিন প্রায় ১ হাজার ২০০ টিকিট বিক্রি হয়।
ময়মনসিংহ বহুরূপী নাট্যগোষ্ঠীর সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন হিলু জানান, যাত্রা মানেই অশ্লীল নিত্য, জুয়াÑএই ভ্রান্ত ধারণা দূর করতেই নতুন আঙ্গিকে মঞ্চস্থ হয় এই নির্মল যাত্রাপালার। যাত্রা সমাজ বদলের হাতিয়ার দাবি করে এটাকে শিক্ষিত মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছাতে উপজেলা পর্যায়ে নেওয়ার জন্য সরকারের সহযোগিতা চান।

Disconnect