ফনেটিক ইউনিজয়
পুনঃস্থাপিত হচ্ছে দুর্গা মন্দিরটি
আবুল বাশার, মানিকগঞ্জ

দুই পক্ষের বিবাদ মীমাংসা হয়ে অবশেষে পুনঃস্থাপিত হচ্ছে  মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার আরিচা শীলপাড়া সর্বজনীন দুর্গা মন্দিরটি। আদালতের নির্দেশে সম্প্রতি মন্দির পুনঃস্থাপনের কাজ শুরু হয়। নির্মাণের যাবতীয় ব্যয় বহন করছেন ব্যবসায়ী আব্দুর রহিম খান। দীর্ঘদিনের এ বিরোধ মীমাংসা হওয়ায় এলাকায় স্বস্তি ফিরে এসেছে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, রাজবাড়ী জেলার জনৈক আক্কাছ আলী শীলপাড়া এলাকায় ১৬০ শতাংশ জমির আরএস রেকর্ডমূলে মালিক ছিলেন। তিনি প্রতিবেশী প্রমথ চন্দ্র ওরফে সূর্য শীলকে জমিটি দেখাশেনার দায়িত্ব দেন। ওই জমির এক পাশে মন্দির ঘর তৈরি করে স্থানীয় হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা প্রায় ২০ বছর ধরে দুর্গা পূজা করে আসছিলেন। কিন্তু আক্কাছ আলী মারা গেলে তাঁর ওয়ারিশানরা ২০০৩ সালে জমিটি ব্যবসায়ী আব্দুর রহিম খানের কাছে বিক্রি করে দেন। রহিম খান তার জমি বুঝে নিতে গেলে সূর্য শীলের সঙ্গে বিরোধ সৃষ্টি হয়। সংবাদ সম্মেলনসহ নানা কর্মসূচি পালন করেন সূর্য শীল ও তাঁর লোকজন। গত ১০ অক্টোবর রাতের আঁধারে কে বা কারা মন্দিরটি ভেঙে অন্যত্র সরিয়ে ফেলে। এ ঘটনায় ক্রয়সূত্রে জমির মালিক আব্দুর রহিম খানসহ তার কর্মচারীদের আসামি করে মানিকগঞ্জ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করেন সূর্য শীল।
বিষয়টি সমঝোতার জন্য স্থানীয়ভাবে একাধিকবার উদ্যোগ নেয়া হয়। এরপর সমঝোতার সিদ্ধান্ত লিখিতভাবে জানানো হলে এক মাসের মধ্যে মন্দির পুনঃস্থাপনের নির্দেশ দেন আদালত। এরপর ওই স্থানে মন্দির স্থাপনের কাজ শুরু হয়। এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদ ও রাজনৈতিক নেতারা উপস্থিত ছিলেন। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার স্বার্থে স্থানীয় নেতাদের সঙ্গে নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সমঝোতা করা হয়েছে। এতে সবাই খুশি। মন্দিরে যাওয়ার জন্য সরকারি অর্থায়নে একটি রাস্তা তৈরি করে দেয়া হচ্ছে বলে জানান শিবালয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামাল মোহাম্মদ রাশেদ।

Disconnect