ফনেটিক ইউনিজয়
১৪ বছরেও বন্ধ হয়নি সেতুর টোল আদায়
আশিক বিন রহিম, চাঁদপুর

১৪ বছরেও প্রত্যাহার করা হয়নি চাঁদপুর সেতুর টোল আদায়। ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী সেতুটির টোল প্রত্যাহারের দাবিতে কয়েক দফা মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল এবং অবরোধ ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে। চাঁদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য ড. মোহাম্মদ শামছুল হক ভূঁইয়া পার্লামেন্টে দাবি তোলা সত্ত্বেও বন্ধ হয়নি টোল আদায়। অথচ সেতুটি নির্মাণে ব্যয়ের দ্বিগুণ অর্থ এরই মধ্যে আদায় হয়েছে। ফলে এ নিয়ে জনমনে দেখা দিয়েছে অসন্তোষ। আর ফুঁসে উঠছে পরিবহন শ্রমিক ও সাধারণ মানুষ।
চাঁদপুর সড়ক বিভাগের তথ্যমতে, ২০০৪ সালে ১৮ কোটি ১২ লাখ টাকায় নির্মাণ হয় ‘চাঁদপুর সেতু’টি। গত ১৪ বছরে প্রায় ৩৫ কোটি টাকা সরকারি কোষাগারে জমা হয়েছে। নতুন করে আবারও তিন বছরের জন্য প্রায় সাড়ে ৮ কোটি টাকায় টেন্ডার প্রক্রিয়া এরই মধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে, যা চলতি বছরের জুনে চূড়ান্ত করা হবে।
ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ও পরিবহন শ্রমিকরা জানান, সরকার জনসাধারণের মঙ্গলের জন্য এ সেতু নির্মাণ করলেও বর্তমানে এটি আমাদের জন্য গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে।
ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সাহেদ সরকার জানান, সেতুটি দিয়েই ফরিদগঞ্জ, রায়পুর, লক্ষ্মীপুরসহ দক্ষিণাঞ্চলের মানুষ যাতায়াত করে। সেতুর টোল বন্ধ না হওয়ায় যানবাহনের ভাড়ায় এর প্রভাব পড়ছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সড়ক ও জনপথ বিভাগের এক কর্মকর্তা জানান, তিন চার বছর ধরে একই ব্যক্তি টেন্ডার ড্রপ করে বিভিন্ন লাইসেন্সের মাধ্যমে সেতুটি ইজারা নেন। তবে টোল আদায় করবে কি করবে না, এটি সরকারের সিদ্ধান্তের বিষয় বলে তিনি জানান।

Disconnect