ফনেটিক ইউনিজয়
লাইব্রেরি ব্যবহারে আগ্রহ কমেছে
মানিক রাইহান, রাবি (রাজশাহী)

দেশি-বিদেশি বই, গবেষণাপত্র, সাময়িকীসহ ৭০ হাজারেরও বেশি সংগ্রহের সমাহার রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার। তবে এতসংখ্যক সংগৃহীত থাকার পরও শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি হাতেগোনা। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, গত এক দশকে কয়েক গুণ শিক্ষার্থী উপস্থিতি কমে গেছে। আর শিক্ষা বিশ্লেষকরা লাইব্রেরি ব্যবহার না হওয়া আর বই পড়ার অভ্যাস কমে যাওয়ায় শিক্ষার্থীদের চিন্তাশক্তি ও সৃজনশীলতা হারিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন।
বিশ^বিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, লাইব্রেরিতে আছে ৩৫ হাজারের অধিক বই, ৪০ হাজারের বেশি গবেষণা পত্রিকা, সাময়িকী। প্রায় ৭৫০টি আসন আছে সেখানে, তবে উপস্থিতি এখন কমে যাচ্ছে।
বিশ^বিদ্যালয় লাইব্রেরির রিডিং রুম রেজিস্ট্রি খাতা সূত্রে জানা গেছে, মার্চে প্রতিদিনের শিক্ষার্থী উপস্থিতির সংখ্যা গড়ে ১০০-১২০ অথবা তার কম। এ মাসের শুরুর দিকে সে সংখ্যা একই রকম। এপ্রিল ও মার্চের মধ্যে সর্বোচ্চ শিক্ষার্থী উপস্থিতি ১৩৯ জন। এদিকে গ্রন্থাগারের বই ইস্যু ও ফেরত বিভাগের কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, বই ধার নেয়ার অবস্থাও খুব নগণ্য। তিনি বলেন, এ সংখ্যা দু-তিন বছর আগেও ছিল হাজারেরও বেশি। এখন মাসে ২০০-২৫০ শিক্ষার্থী বই ধার নেন।
এ বিষয়ে কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, ‘বিষয়ভিত্তিক সিলেবাসের সাথে বইয়ের মিল পাওয়া যায় না। ইন্টারনেটের ব্যবহার সহজলভ্য হয়েছে ই-বুক, গবেষণাপত্র। তাই ই-বুক, ইন্টারনেট থেকে বইগুলো নিয়ে পড়াশোনা করা হয়। এজন্য বই ধার নেয়া কমিয়ে দিচ্ছেন। তাই লাইব্রেরিতে যাওয়ার প্রয়োজন হয় না।

Disconnect