ফনেটিক ইউনিজয়
ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় লোকসানে চাষিরা!
কামাল উদ্দীন টগর, নওগাঁ

নওগাঁর রানীনগরের কৃষকরা পড়েছেন দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কবলে। উঠতি ইরি-বোরো মৌসুমে ধানের ভালো ফলন হলেও দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় লোকসানের মুখে পড়েছেন চাষিরা। এতে সোনালি হাসির পরিবর্তে চরম হতাশায় পড়েছেন তারা।
জানা গেছে, প্রথম দিকে আবহাওয়া অনুকূল থাকায় এবং তেমন রোগবালাই না থাকায় ধান খুব ভালো হয়েছিল। তবে ধান পাকার সময় শেষের দিকে ব্লাস্টের আক্রমণে কিছু কিছু এলাকায় ধানের বেশ ক্ষতিও হয়েছে। ঠিক যে সময় কৃষকরা ধান কেটে ঘরে তুলবেন, তখনই নেমে এসেছে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া।
কৃষকরা জানান, চলতি মৌসুমে সরকারিভাবে ধানের ক্রয়মূল্য প্রতি মণ ১ হাজার ৪০ টাকা নির্ধারিত থাকলেও কদিন ধরে ধানের মোকাম হিসেবে খ্যাত আবাদপুকুর হাটে ৬৫০-৮২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ধানে গাছ ওঠায় এবং অতিরিক্ত ভিজে থাকায় অনেক ধান অবিক্রীত অবস্থায় পড়ে আছে উঠানে। চলতি মৌসুমে এক বিঘা (৩৩ শতক) জমিতে ধান উৎপাদন করতে অঞ্চল ভেদে জমি  মালিকদের খরচ হয়েছে প্রায় সাড়ে ৮ হাজার থেকে প্রায় ১০ হাজার টাকা। তবে বর্গাচাষিদের ক্ষেত্রে জমির বর্গার পাওনাসহ খরচ পড়েছে ১৬-১৯ হাজার টাকা।
এক বিঘা জমিতে বর্তমানে ধানের ফলন হচ্ছে ২২-২৫ মণ পর্যন্ত। এতে ধান বিক্রি করে জমির মালিকরা কিছু লাভবান হলেও লোকসানের মুখে পড়েছেন বর্গাচাষিরা।

Disconnect