ফনেটিক ইউনিজয়
বাড়বে সরপুঁটি উৎপাদন
শাহীন সরদার, বাকৃবি (ময়মনসিংহ)

থাই সরপুঁটি একটি বিদেশি প্রজাতির মাছ। সাধারণত তিন-চার মাসেই বাজারজাত করা যায় বলে দেশে এর চাহিদা অনেক। সরপুঁটির পোনা দেশের বিভিন্ন হ্যাচারিতে উৎপাদন হয়। কিন্তু ডিম থেকে পোনা উৎপাদনের সময় বেশিরভাগ পোনা পুরুষ মাছ হওয়ায় মাছ উৎপাদন অনেকাংশেই কমে যায়। কারণ মা-সরপুঁটির চেয়ে পুরুষ সরপুঁটির বৃদ্ধির হার অনেক কম। তাই জিনতাত্ত্বিক উপায়ে সব পোনাকে মা-মাছ তৈরি করা সম্ভব হলে এর উৎপাদন বাড়ানো সম্ভব।
৮ মে দুপুর ১২টার দিকে মৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের সম্মেলন কক্ষে ‘জিনতাত্ত্বিক উপায়ে মা-মাছ তৈরির মাধ্যমে থাই সরপুঁটি উৎপাদন বৃদ্ধির কৌশল’ বিষয়ক এক কর্মশালায় এসব কথা বলেন গবেষণার প্রধান গবেষক অধ্যাপক ড. মো. রফিকুল ইসলাম সরদার।
মৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. গিয়াস উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন ময়মনসিংহ জেলার মৎস্য অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. মিজানুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্চ সিস্টেমের পরিচালক ড. এমএএম ইয়াহিয়া খন্দকার। এছাড়া কর্মশালায় ময়মনসিংহ অঞ্চলের বিভিন্ন কৃষি খামার ও মৎস্য হ্যাচারির মালিক ও বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Disconnect