ফনেটিক ইউনিজয়
সরকারি সাত কর্মকর্তার সম্পদ অনুসন্ধানে দুদক
জিয়াউস সাদাত, খুলনা

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে খুলনার সরকারি সাত কর্মকর্তা ও তাদের পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে অনুসন্ধান শুরু করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। সংশ্লিষ্টরা ক্ষমতার অপব্যবহার, চাঁদাবাজি, ঘুষ, অনিয়ম, দুর্নীতি, মাদক ব্যবসা ও বিভিন্ন প্রকল্পের অর্থ আত্মসাতের মাধ্যমে কোটি কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন করেছেন মর্মে অভিযোগ রয়েছে। অনুসন্ধানে অভিযোগের সত্যতা মিললে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছে দুদক।
অভিযুক্তরা হলেন জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর খুলনা সার্কেলের সাবেক তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (অবসরপ্রাপ্ত) এমডি কামাল উদ্দিন আহমেদ। তিনি বর্তমানে খুলনা পানি সরবরাহ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালকের দায়িত্বে রয়েছেন। বাগেরহাট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার অশোক কুমার সমাদ্দার, কেএমপির খালিশপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সরদার মোশাররফ হোসেন, খুলনা কর অঞ্চলের যুগ্ম কর কমিশনার গণেশ চন্দ্র ম-ল, পুলিশের অপরাধ তদন্ত সংস্থা সিআইডির এসআই মধুসূদন বর্মন, কেএমপির নিরালা পুলিশ ফাঁড়ির প্রাক্তন এসআই মো. সোহেল রানা ও খুলনা স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয়ের স্টেনোগ্রাফার ফরিদ আহমেদ। উল্লিখিত সব কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অবৈধভাবে সম্পদ অর্জনের অভিযোগ উঠেছে এবং আয়বহির্ভূত সম্পদ নিজের নামে, স্ত্রী ও সন্তানদের নামে করা হয়েছে।
তদন্তের সত্যতা স্বীকার করে দুদক সমন্বিত খুলনা জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক মোহাম্মদ আবুল হোসেন বলেন, ক্ষমতার অপব্যবহার, চাঁদাবাজি, ঘুষ, অনিয়ম, দুর্নীতি, মাদক ব্যবসা ও প্রকল্পের অর্থ আত্মসাতের মাধ্যমে এসব কর্মকর্তারা তাদের পরিবারের সদস্যদের নামে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করেছেনÑ এমন অভিযোগ দুদকে দাখিল হয়েছে।
তবে উল্লিখিত কর্মকর্তাদের মধ্যে কয়েকজনের কাছে অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তারা এসব অভিযোগ অসত্য ও ষড়যন্ত্রমূলক বলে দাবি করেন। তারা বলেন, অনুসন্ধানে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যাবে না।

Disconnect