ফনেটিক ইউনিজয়
হুমকিতে চার সেতু
মো. মামুন চৌধুরী, হবিগঞ্জ

ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য থেকে চলে আসা হবিগঞ্জের খোয়াই নদীতে পাহাড়ি ঢল এলেই বাঁধ ধসা শুরু হয়। শুধু তা-ই নয়, হুমকির মুখে রয়েছে মাছুলিয়া সেতু, শায়েস্তাগঞ্জ নতুন সেতু, পুরানবাজার লৌহ ও রেল সেতুও। এরই মধ্যে বিভিন্ন এলাকায় বাঁধের বেশকিছু অংশ ধসে নদীতে পড়ে গেছে। অনেক স্থানে ফাটল ধরেছে। এ বর্ষা মৌসুমে যেকোনো সময় বাঁধ ও সেতু চারটি ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কা করছে স্থানীয়রা।
বাঁধ ভাঙলে শহর ও হাওরবেষ্টিত নদীতীরবর্তী গ্রামগুলো মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ অবস্থায় আশপাশের গ্রামগুলোর বাসিন্দাদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।
সরেজমিন ঘুরে জানা যায়, শহরতলির তেঘরিয়া ইউনিয়নের কাকিয়ারআব্দা এলাকায় হঠাৎ নদীর বাঁধে ফাটল দেখা দেয়। একপর্যায়ে বাঁধ ধসে নদীতে পড়তে থাকে। বিকালের মধ্যেই বাঁধের বিশাল এলাকা খসে নদীতে পড়ে যায়। এলাকাবাসী জানায়, দীর্ঘদিন ধরেই মাছুলিয়া সেতুর পাশে নদীর পূর্ব অংশ থেকে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালি উত্তোলন করা হচ্ছে। ফলে বিশাল গর্তের সৃষ্টি হয়ে বাঁধ ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। ঝুঁকির মাঝে রয়েছে মাছুলিয়া সেতুটিও।
একইভাবে শায়েস্তাগঞ্জ নতুন সেতু, পুরাববাজার লৌহ ও রেলওয়ে সেতুর অতি কাছ থেকে বালি উত্তোলন করা হচ্ছে। ফলে এ তিনটি সেতুও হুমকির মুখে পড়েছে। অবিলম্বে অনিয়ন্ত্রিত এ বালি উত্তোলন বন্ধের দাবি জানান তারা। সেই সঙ্গে বাঁধ ও সেতু মেরামতের দাবি করেছে নদীপাড়ের লোকজন।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. তাওহীদুল ইসলাম জানান, শহরের মাছুলিয়া সেতুর পূর্ব পাড়ে নদীর বাঁধ ধসে পড়ছে। সেতুর পাশ থেকে প্রচুর পরিমাণে বালি উত্তোলনের ফলে ওই স্থানটিতে বিশাল গর্তের সৃষ্টি হয়। আর নদীর পানি কমে যাওয়ায় বাঁধ ধসে পড়তে থাকে। এখন বাঁধটি ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। যেকোনো সময় ভাঙতে পারে। তবে এটি মেরামতের জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে।

Disconnect