ফনেটিক ইউনিজয়
সম্পত্তি দখলে নগর পুলিশ!
ফেরদৌস সিদ্দিকী, রাজশাহী

রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারের প্রায় আড়াই একর জমি দখলে নেমেছে মহানগর পুলিশ (আরএমপি)। কারাগারের সবুজবাগ আবাসিক এলাকাটি নিজেদের দাবি করে আসছে পুলিশ। তবে নগরীর দরগাপাড়া মৌজার ওই সম্পত্তি এখনো দখলে রয়েছে কারা কর্তৃপক্ষের। সেখানে কারা একাডেমির বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ চলছে।
কারা কর্তৃপক্ষের দাবি, নগরীর দরগাপাড়া মৌজার এই জমিটুকু তাদেরই। বৃটিশ শাসনামল থেকেই এই সম্পত্তি তাদের অধিকারেই রয়েছে। জমির মালিকানা সংক্রান্ত কাগজপত্রও রয়েছে তাদের। আরএস মাঠ খসড়া খতিয়ানে জমির পরিমাণ ২ দশমিক ৪৫৫০ একর দেখানো হয়। এসব নথিতে জমির মালিকানা কারা বিভাগের দেখানো হয়েছে। কিন্তু চূড়ান্ত আরএস খতিয়ানে জমির পরিমাণ একই থাকলেও মালিকানা দেখানো হয়েছে পুলিশ বিভাগকে।
কারা কর্তৃপক্ষের ভাষ্য, মুদ্রণজনিত ভুলের কারণে কারা বিভাগের জায়গায় চলে এসেছে পুলিশ বিভাগের নাম। এরপর থেকে খাজনা-খারিজও হয় পুলিশের নামেই। টের পেয়ে ভুল সংশোধনে ১৯৯৯ সালের ১৩ জানুয়ারি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) বরাবর পত্র পাঠান সিনিয়র জেল সুপার। এর ২০ দিনের মাথায় কারা কর্তৃপক্ষ জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) বরাবর আবারো পত্র দেয়। দীর্ঘদিনেও এটি সংশোধন হয়নি। উল্টো খাজনা পরিশোধে সম্প্রতি পুলিশ বিভাগকে চিঠি দেয় ভূমি অফিস। পরে বকেয়াসহ খাজনা পরিশোধ করে পুলিশ বিভাগ। এরপর থেকেই তারা জমির দখলে উঠেপড়ে লাগে।
জমি নিজেদের দখলে নিতে ওই সময় জেলা প্রশাসনকে পত্র দেয় পুলিশ। এর প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসক সম্পত্তি দখলমুক্ত করতে কারা কর্তৃপক্ষকে মৌখিক নির্দেশও দেন। এ ঘটনার পর ২০০১ সালের ২০ জুন রাজশাহীর সাব জজ-১ এর আদালতে রেকর্ড সংশোধনী মামলা দেয় কারা কর্তৃপক্ষ। পরে ২০০৪ সালের ৩১ জানুয়ারি রাজশাহীর যুগ্ম জেলা জজ-১ ওই সম্পত্তি কারা বিভাগের বলে ডিগ্রি দেন।

Disconnect