ফনেটিক ইউনিজয়
রসিক-এর নিজস্ব ম্যাজিস্ট্র্রেট নেই
রাফাত হোসেন বাঁধন, রংপুর

রংপুর সিটি করপোরেশনের জনশৃংঙ্খলা রক্ষা ও অপরাধ দমনে রসিক কর্তৃপক্ষের নেই কোনো নিজস্ব নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। ফলে জনশৃংঙ্খলা রক্ষা ও অপরাধ নিয়ন্ত্রণের জন্য নিজস্ব মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করতে পারছে না রসিক কর্তৃপক্ষ।
২০ ডিসেম্বর ২০১২ সালে ২০৫ বর্গকিলোমিটার আয়তনের ৩৩টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত হয় দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম ১০ম সিটি  করপোরেশন রংপুর। কিন্তু সিটি করপোরেশন ঘোষণার ছয় বছর হলেও রসিক কর্তৃপক্ষের নেই কোনো নিজস্ব নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। ফলে খাদ্যে ভেজাল রোধ, অবৈধ খাল পাড় দখল, ফুটপাত দখল, দখল উচ্ছেদ, নকশাবিহীন দালান ও সড়কে লাইসেন্সবিহীন অটোর যানজটসহ নানা সমস্যা মোকাবিলায়  মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করতে পারছে না।
এ বিষয়ে জনপ্রতিনিধি তানভীর হোসেন আশরাফী বলেন, আমাদের এই বিশাল আয়তনের সিটি করপোরেশনে প্রায় পাঁচ লাখ মানুষ বসবাস করেন। এখানে ৪৪ জন কাউন্সিলর ও একজন মেয়র রয়েছে। সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করার জন্য সিটি করপোরেশনের একজন ম্যাজিস্ট্রেট প্রয়োজন। সিটিতে একজন ম্যাজিস্ট্রেট আছে কিন্তু তার ম্যাজিস্ট্র্রেসির কোনো ক্ষমতা নেই। মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলেন, মানুষের আইন মানার যে প্রবণতা তা অনেকটাই কমে গেছে। একজন ম্যাজিস্ট্রেট পোস্টিং হলেও তার মোবাইল কোর্ট পরিচালনার জন্য অতিরিক্ত ক্ষমতা নেই। এজন্য অনুমোদন দরকার জন-প্রশাসন মন্ত্রণালয়ের। এক্ষেত্রে সুনির্দিষ্ট কর্মপরিকল্পনার অভাব থাকায় এখন পর্যন্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এর সক্ষমতা অর্জন করতে পারেনি রসিক কর্তৃপক্ষ। এজন্য জন-প্রশাসন মন্ত্রণালয়ের আইনি কর্ম-পরিকল্পনার জটিলতা দায়ী।
আমরা জনগণের প্রতিনিধি, আমরা জনগণের ভোটে নির্বাচিত, জনগণের বিপক্ষে কাজ করার সুযোগ নেই। তবে আমরা অবৈধ কাজগুলো সম্পর্কে প্রচারণা চালাচ্ছি। তারপরও যদি কেউ না মানে তাহলে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Disconnect