ফনেটিক ইউনিজয়
সবজি চাষে লোকসানের সম্ভাবনা
শামিম কাদির, জয়পুরহাট

জয়পুরহাটে আগাম সবজি চাষে বরাবরই দেশের মধ্যে সুনাম কুড়িয়েছেন এখানকার  চাষিরা। এ বছর সবজিতে পোকামাকড় আর রোগবালাইয়ের আক্রমণ বাড়ায় সবজির উৎপাদন খরচ যেমন বেড়েছে তেমনি লোকসানের সম্ভাবনা দেখছেন কৃষকরা।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, জেলায় এ বছর ছয় হাজার হেক্টর জমিতে সবজি চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর মধ্যে আগাম জাতের সবজি চাষ হয়েছে প্রায় তিন হাজার হেক্টর জমিতে। আগাম এই সবজির মধ্যে রয়েছেÑ ফুলকপি, বাঁধাকপি, বেগুন, শিম, মূলা, টমেটো, বরবটি, লাউ ইত্যাদি।
জেলার  আক্কেলপুর উপজেলার মাতাপুর গ্রামের কৃষক গফুর মিয়া বলেন, বর্তমানে যেভাবে সবজিতে খরচ বেড়েছে সেভাবে ফলন হচ্ছে না। বিশেষ করে পোকামাকড়ের আক্রমণ অনেক বেশি এ বছর।
জেলার সবচেয়ে বড় কাঁচা বাজার শহরের নতুনহাটে  সবজি  ক্রেতা সোহেল রানা অভিযোগ করেন,  কম দামে সবজি কিনে চড়া দামে বিক্রি করছেন পাইকারি ও খুচরা ব্যবসায়ীরা। এতে সাধারণ ক্রেতারা বিপাকে পড়ছেন। ব্যবসায়ীদের পাল্টা দাবি, বাজারে সবজির চাহিদা বেশি কিন্তু সরবরাহ কম থাকায় দাম চড়া। চড়া দামে কিনতে হচ্ছে তাই চড়া দামেই বিক্রি করতে হচ্ছে।
জয়পুরহাট জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন খান বলেন, আগাম সবজিতে ফলন কিছুটা কম হয়, তাই আগাম জাতের বীজ বুনলে রোগবালাই কম হবে।

Disconnect