টাঙ্গাইলে মায়ের পা ধুয়ে ভালোবাসা দিবস উদযাপন

ছবি: টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

ছবি: টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

টাঙ্গাইলে প্রতিবছরের মতো এ বছরও ভিন্ন আঙ্গিকে পালিত হয়েছে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। দিনটিকে স্বরণীয় করে রাখতে মায়েদের পা ধুয়ে ভালোবাসা দিবস করে পালন করছে হাতেখড়ি প্রি-প্রাইমারি স্কুল নামের একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। 

মানসিকতা পরিবর্তনের উদ্দেশেই এভাবে দিনটি পালন করছে প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান নওশাদ রানা সানভী।

ভালবাসা দিবস শুধু তরুণ-তরুণীর প্রেম নয়। এর বাইরেও কিছু হতে পারে তা দেখিয়ে দিলো টাঙ্গাইলের হাতেখড়ি প্রি-প্রাইমারি স্কুলের ক্ষুদে শিক্ষার্থী। এ দিনটি মাকে উৎসর্গ করে তারা। পা ধুয়ে মায়ের প্রতি শ্রদ্ধা জানায় প্রায় দেড় শতাধিক শিশু। 

টাঙ্গাইল শহরের এসপি পার্কে চতুর্থবারের মতো ১৪ ফের্রুয়ারি মায়ের প্রতি ভালবাসা ও শ্রদ্ধা জানানোর ব্যতিক্রমী আয়োজন করে প্রতিষ্ঠানটি। সন্তানের কাছে এমন শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা পেয়ে আবেগে আপ্লুত মায়েরা আর শিশুরা হয়েছে আনন্দিত। অনুষ্ঠান শেষে দেড় শতাধিক মা’দের সংবর্ধনা দেয়া হয়।

অংশগ্রহণকারী অভিভাবকরা বলেন, এরকম অনুষ্ঠান একটি সন্তানের মানসিক পরিবর্তন ও গঠনে সঠিক ভুমিকা রাখবে এবং বড় হয়ে তারা জানবে ভালোবাসা দিবস শুধু বন্ধুবান্ধব, প্রেমিক-প্রেমিকার জন্যই নয়। এই দিনে মা-বাবাকে সময় দিতে হবে। তাদের প্রতি ভালোবাসা নিবেদন করতে হবে। আর এই অনুষ্ঠান থেকে নতুন প্রজন্মের শিশুরা তাদের পিতা-মাতার প্রতি দায়িত্ব-কর্তব্য ও শ্রদ্ধা করতে শিখবে।

হাতেখড়ি প্রি-প্রাইমারি স্কুলের উপদেষ্টা ও টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সভাপতি অ্যাডভোকেট জাফর আহমেদ জানান, বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে মায়ের পা ধুয়ে দিচ্ছে বাচ্চারা। এটি একটি অনন্য উদাহরণ। মায়েদের প্রতি শিশুদের যে শ্রদ্ধা ভালোবাসা প্রমাণ করার জন্যই এই দিবসকে স্কুলের আয়োজন নিশ্চয় ভালো উদ্যোগ।

হাতেখড়ি প্রি-প্রাইমারি স্কুলের চেয়ারম্যান নওশাদ রানা সানভী বলেন, বর্তমান সময়ে দেখা যায় সন্তানদের অবহেলায় বৃদ্ধ মা-বাবাকে বৃদ্ধাশ্রমে যেতে হয়। যা খুবই বেদনার। আমরা মনে করি ভালোবাসা দিবসে ভালোবাসা পাওয়ার প্রথম ভাগিদার মা-বাবা। যদিও তাদের প্রতি ভালোবাসা প্রদর্শনের কোনো বিশেষ দিনের প্রয়োজন হয় না। তারপরও বিশেষ এই দিনে শিশুদের মনে মা-বাবার প্রতি অটুট ভালোবাসা এনে দিতেই  ১৪ ফেব্রুয়ারি চতুর্থবারের মতো এই আয়োজন। মূলত নৈতিক শিক্ষায় শিশুদের গড়ে তুলতেই আমাদের এই আয়োজন।

মন্তব্য করুন

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh