আগস্টে মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৪৯ শতাংশে

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

সার্বিকভাবে আগস্টে মূল্যস্ফীতি পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৪৯ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৬২ শতাংশ। খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ২৭ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ছিল ৫ দশমিক ৪২ শতাংশ। খাদ্য বর্হিভূত পণ্যেও মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৮২ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৯৪ শতাংশ।

পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান বলেন, ‘মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। আগামীতে আরো কমবে বলে আশা করছি। আর্থিক ব্যবস্থাপনার কারণে এটা সম্ভব হয়েছে।’

মূল্যস্ফীতি কমার কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘বৃষ্টি কমেছে, বন্যার সময় যোগাযোগ ব্যবস্থাও ভাল ছিল। তাই পণ্য পরিবহণ স্বাভাবিক অবস্থায় ছিল। এছাড়া ঈদও শেষ হয়েছে বাজারের উপর চাপ কমেছে।’ 

গ্রামে সার্বিকভাবে পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৩৪ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৪৯ শতাংশ। খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৩৮ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৬০ শতাংশ। খাদ্য বহির্ভুত পণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ২৫ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ২৭ শতাংশ।

রাজধানীর শেরে বাংলানগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে মঙ্গলবার একনেক পরবর্তী ব্রিফিংয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী এ তথ্য তুলে ধরেন। ব্রিফিংয়ে পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক কৃষ্ণা গায়েন জানান, প্রতি মাসের ১৩ তারিখ থেকে ১৮ তারিখের মধ্যে বাজার মনিটরিং করা হয়।

এছাড়া শহরে সার্বিক মূল্যম্ফীতি পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৭৫ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৮৮ শতাংশ। খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক শূণ্য ২ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক শূন্যে ৩ শতাংশ। এছাড়া খাদ্য বহির্ভুত পণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ৬০ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৬ দশমিক ৮৪ শতাংশ।

মন্তব্য করুন

© 2019 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh