ফনেটিক ইউনিজয়
সা ক্ষা ৎ কা র
সমালোচনা গঠনমূলক হতে হবে

অভিনেত্রী জাকিয়া বারী মম। দারুচিনি দ্বীপ ছবির পর ২০১৫ সালে তার অভিনীত ‘ছুঁয়ে দিলে মন’ দর্শকের মধ্যে দারুণ সাড়া ফেলে। তিন বছর পর গত ২০ এপ্রিল মুক্তি পেল মম অভিনীত ‘আলতাবানু’ ছবিটি। চলচ্চিত্র ও সমসাময়িক নানা প্রসঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। সাক্ষাৎকার নিয়েছে এনআই বুলবুল

মিডিয়ায় একজন নির্মাতার সঙ্গে আপনার সর্ম্পক রয়েছে বলে গুঞ্জন রয়েছে। এটি কতটুকু সত্য?

প্রতিটি সম্পর্কের একটি নাম থাকে। আমাদের সম্পর্কেরও নাম রয়েছে। তবে সেটি কী, তা এ মহূর্তে বলতে চাই না। সময় হলে সবাই এ সম্পর্কে জানতে পারবেন।

এ সময়ের শোবিজ নিয়ে আপনার মন্তব্য কী?
আমরা সমালোচনা বেশি করি। তবে গঠনমূলক সমালোচনা না করলে সেটি সবার জন্য ক্ষতিকর। তাই সমালোচনা গঠনমূলক হতে হবে। এছাড়া পেশার প্রতি আমাদের আরও বেশি দায়িত্বশীল হওয়া প্রয়োজন। সবাই সবার জায়গায় সঠিক থাকলে আমাদের আরও উন্নতি হবে।

বলিউডের একটি ছবিতে অভিনয় করবেন বলে সংবাদ প্রকাশ হয়েছিল। সেটির কাজ কতদূর?
নাম চূড়ান্ত না হওয়া বলিউডের সে ছবিটি নির্মাণ করবেন ফয়সাল সাইফ। মার্চে ছবিটির শুটিং শুরু হওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু আইনি জটিলতায় সেখানে ছবির শুটিং শুরু করতে বিলম্ব হচ্ছে। শুটিং হবে কলকাতার এক জমিদার বাড়িতে। সেখানে অনেক বছর কোনো ছবির শুটিং হয়নি।

চলচ্চিত্রে আপনার উপস্থিতি কম কেন?
চলচ্চিত্রে আমার উপস্থিতি কম এটি ঠিক নয়। আমার চলচ্চিত্রের সংখ্যা কম। আমার মুক্তিপ্রাপ্ত সব ছবি দর্শক গ্রহণ করেছে। একেকটি ছবির গল্প ও প্রেক্ষাপট একেক রকম। সত্যি বলতে আমি নিজেই ছবির সংখ্যা বাড়াইনি। আমার কাছে কাজের মানটা বড়। সব ধরনের গল্প ও চরিত্রে কাজ করে সস্তা আলোচনায় থাকতে চাই না।

তিন বছর পর বড় পর্দায় ফেরা। আপনি এটিকে কীভাবে দেখছেন?
আমি শুধু চলচ্চিত্রের নায়িকা হয়ে পর্দায় আসিনি। যারা চলচ্চিত্রের নায়িকা হয়ে চলচ্চিত্রে আসেন, তারা নিয়মিত অভিনয় করছেন। সেক্ষেত্রে আমার জন্য তিন বছর বেশি সময় মনে হয় না। হয়তো এর মধ্যে অরও ছবি করতে পারতাম। কিন্তু সেগুলো দিয়ে দর্শকের কাছে আসা যেত না। সময়ের চেয়ে ভালো কাজটাকেই আমাদের প্রাধান্য দেয়া প্রয়োজন।

এবার আলতাবানু ছবি সম্পর্কে বলুন। কেমন সাড়া পেলেন?
ফরিদুর রেজা সাগরের গল্পে ‘আলতা বানু’র সংলাপ লিখেছেন বৃন্দাবন দাস। এটি পরিচালনা করেছেন অরুণ চৌধুরী। ছবিতে জুটি বেঁধেছি আনিসুর রহমান মিলনের সঙ্গে। আলতা ও বানু নামের দুই বোনের জীবনের ঘটে যাওয়া নানা ঘটনা নিয়ে নির্মিত হয়েছে ‘আলতা বানু’। এটিতে আলতা চরিত্রে আমি আর বানু চরিত্রে অভিনয় করেছেন ফারজানা রিক্তা। ছবিটি বোদ্ধাদের কাছে বেশ প্রশংসিত হয়েছে।

কোনো ছবি মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে?
তানিম রহমান অংশুর ‘স্বপ্নবাড়ি’ শিরোনামের একটি ছবি মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। এটিতেও আমার সঙ্গে থাকছেন আনিসুর রহমান মিলন। ভৌতিক গল্পের ভিত্তিতে ছবিটি নির্মিত হয়েছে। এটি আমার একটি স্বপ্নের ছবি। ভিন্ন আমেজ পাবে দর্শক এ ছবিতে।

ছোট পর্দার কাজ নিয়ে বলুন।
আমি পেশাদার অভিনেত্রী। প্রতিদিনই ছোট পর্দার জন্য কাজ করি। তবে ছোট পর্দার সব কাজ আমার জন্য স্পেশাল নয়। পেশার খাতিরেই অনেক কাজ করতে হচ্ছে। আসছে ঈদের জন্য বিশেষ কিছু কাজ করব, যেগুলোয় দর্শক আমার স্পেশাল কিছু দেখতে পাবে।

আপনি একাধিক ধারাবাহিকে অভিনয় করছেন। ধারাবাহিকগুলো কি দর্শক টানতে পারছে বলে মনে করেন?
বিভিন্ন চ্যানেলে আমার অভিনীত রহমতুল্লাহ তুহীনের ‘যখন কখনো’,  নজরুল ইসলাম বাবুর ‘ঘরে বাইরে’, শিহাব শাহীনের ‘লিপস্টিক’ শীর্ষক ধারাবাহিকগুলো প্রচার হচ্ছে। আমার অভিনীত ধারাবাহিকগুলো একেকটি একেক গল্পে নির্মিত হয়েছে। বিশেষ করে ‘লিপস্টিক’ ধারাবাহিকের গল্প দিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণও সম্ভব। আমি মনে করি, আমাদের ধারাবাহিকগুলোয় বিভিন্ন গল্প রয়েছে। কিন্তু আমরা নাটক দেখি না বলেই জানি না আমাদের নাটক কেমন হচ্ছে।

Disconnect