ফনেটিক ইউনিজয়
‘গল্পের নায়ক হতে চাই’

আফরান নিশো। বৈচিত্র্যময় চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকের কাছে দারুণ গ্রহণযোগ্যতা তৈরি করেছেন এ অভিনেতা। গেল ঈদে বিভিন্ন চ্যানেলে তার একাধিক নাটক প্রচারিত হয়েছে। সমসাময়িক নানা প্রসঙ্গে তার সঙ্গে কথা বলেন এনআই বুলবুল

ঈদে প্রচারিত নাটকগুলো থেকে কেমন সাড়া পেলেন?
মিজানুর আরিয়ানের ‘বুকের বাঁ পাশে’, আশফাক নিপুণের ‘ফেরার পথ নেই’, হাবিব শাকিলের পরিচালনায় ‘সিনেমা জীবন’, মাবরুর রশীদের ‘হোম টিউটর’, সাজ্জাদ সুমনের ‘বুক পকেট’ ও ‘ক্লাসলেস মোখলেস’, এবং সুমন আনোয়ারের ‘কমলার বনবাস’ নাটকগুলোর জন্য বেশ সাড়া পেয়েছি। ‘বুকের বাঁ পাশে’ নাটকের গানটিও দারুণ জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

আপনি কেমন গল্প ও চরিত্রে অভিনয় করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন?
একটি নাটকে গল্পটি যাকে নিয়ে, তিনিই মূলত নায়ক। তিনি রিকশাচালক কিংবা মুচিও হতে পারেন। তবে আমরা নায়ক বলতে যেটি বুঝি, সে রকম নায়ক হতে চাই না। আমি গল্পের নায়ক হতে চাই। গল্পের নায়ককে দর্শক মনে রাখে বেশি। অভিনয় দিয়ে দর্শকের মনে দাগ কাটতে চাই।

ঈদে আপনার এক ডজনেরও বেশি নাটক প্রচারিত হয়েছে। সংখ্যাটিকে কীভাবে দেখছেন?
আমাদের দেশে উৎসবকেন্দ্রিক নাটক-চলচ্চিত্রের প্রতি দর্শকের আগ্রহ থাকে বেশি। এ সময়ে টিভি চ্যানেলের সংখ্যাও কিন্তু কম নয়। সেখানে একটি চ্যানেলের জন্য একটি করে নাটক হলেও এক ডজন হয়ে যায়।

আগামীতে নিজেকে কীভাবে দেখতে চান?
একটা সময় আমার মধ্যে হিরোইজম বিষয়টি হয়তো আর থাকবে না। তখনও আমাকে অভিনয় করতে হবে। এখন থেকে যদি নানা রকম চরিত্রে অভিনয়ের চর্চা না থাকে, তখন আর অভিনয় করতে পারব না। আগামীতেও নিয়মিত হতে এখন নানা মাত্রিক চরিত্রে অভিনয় করতে চাই।

অভিনয়ে কাকে আদর্শ ভাবেন?
আমার আদর্শ হুমায়ূন ফরীদি। একজন পরিপূর্ণ অভিনেতা তিনি। ফরীদি ভাইকে দেখেছি বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করতে। তিনি আজীবন তার অভিনয়গুণে আমাদের মাঝে বেঁচে থাকবেন। ফরীদি ভাইকে দেখে আমিও বিভিন্ন চ্যালেঞ্জিং চরিত্রে কাজ করার উৎসাহ পাই। তিনি থাকলে আমরা আরও অনেক কিছু পেতাম।

টিভি ধারাবাহিক সম্পর্কে জানতে চাই।
হিমেল আশরাফের ‘এক লক্ষ লাইক’, ইমরাউল রাফাতের ‘সিনেমাটিক’, সুমন আনোয়ারের ‘সুখী মীরগঞ্জ’ ও ‘ইডিয়ট’, সাজ্জাদ সুমনের ‘ছলে বলে কৌশলে’ এবং আরবি প্রিতমের ‘সেমি কর্পোরেট’ শীর্ষক ধারাবাহিকগুলো হাতে রয়েছে। এখন ধারাবাহিক নাটক দর্শকের মনে দাগ কাটতে পারছে না। তবু চেষ্টা করছি ভালো গল্পের ধারাবাহিকে কাজ করতে।

চলচ্চিত্রে কাজ করার পরিকল্পনা রয়েছে?
বড় পর্দায়ও কাজ করার ইচ্ছে আছে। মনের মতো গল্প ও চরিত্র পেলে চলচ্চিত্রের খাতায় নাম লেখাব। সেটির জন্য অপেক্ষা করতে হবে। হয়তো ভালো কিছু সামনে পাবেন। বিশ্বকাপ ফুটবল চলছে।

Disconnect