করোনা: যে কারণে পুরুষের মৃত্যুঝুঁকি বেশি

বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া মহামারী নভেল করোনাভাইরাসে নারীদের চেয়ে পুরুষরা বেশি মৃত্যুঝুঁকিতে রয়েছে।

মৃত ও গুরুতর আক্রান্তদের সংখ্যা বিশ্লেষণ করে এ তথ্য জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

পুরুষদের মৃত্যুঝুঁকি বেশি হওয়ার পেছনে সাধারণভাবে দুর্বল শারিরীক পরিস্থিতির সাথে ধূমপান ও মদ্যপানের মতো স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর অভ্যাসগুলোকে দায়ী করেন বিশ্লেষকরা।

কেন নারীদের চেয়ে পুরুষদের মৃত্যু বেশি হচ্ছে- তা খুঁজে দেখতে ২০ মার্চ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ২০টি দেশের সরকারিভাবে প্রকাশিত তথ্য বিশ্লেষণ করেছে সিএনএন।

এক্ষেত্রে বিশ্ব স্বাস্থ্যে লিঙ্গ অসমতার গবেষণা প্রতিষ্ঠান গ্লোবাল হেলথ ফিফটি/ফিফটির সহযোগিতা করেছে।

সিএনএন বলেছে, এই দেশগুলোর মধ্যে মাত্র ছয়টি দেশ- চীন, ফ্রান্স, জার্মানি, ইরান, ইতালি, ও দক্ষিণ কোরিয়া- করোনাভাইরাসে মৃত ও আক্রান্তের লিঙ্গভিত্তিক তথ্য দিয়েছে। আরো সাতটি দেশ শুধু আক্রান্তের লিঙ্গভিত্তিক তথ্য দিতে দিয়েছে। বাকিগুলোর কোনো লিঙ্গভিত্তিক তথ্য নেই ও প্রাপ্ত সব তথ্যও সামগ্রিক নয়।

ইতালিতে কভিড-১৯ আক্রান্তদের মধ্যে প্রায় ৬০ শতাংশই পুরুষ, আর মৃতদের মধ্যে ৭০ শতাংশেরও বেশি পুরুষ। দক্ষিণ কোরিয়াতে মোট মৃত্যুর ৫৪ শতাংশই পুরুষ।

প্রাপ্ত তথ্য বিশ্লেষণ করে সিএনএন দেখেছে, নভেল করোনায় ইতালিতে ১০ জন নারীর মৃত্যুর বিপরীতে ২৪ জন, চীনে ১৮ জন, জার্মানিতে ১৬ জন, ইরান ও ফ্রান্সে ১৪ জন ও দক্ষিণ কোরিয়াতে ১২ জন পুরুষ মারা গেছেন।

মৃত্যুহারের সাথে ভাইরাসটি আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিও নারীদের চেয়ে পুরুষদের মধ্যে বেশি। প্রতি ১০ জন নারীর ইতালিতে ১৪ জন, ইরান ও জার্মানিতে ১৩ জন, চীনে ১০ জন পুরুষ আক্রান্ত পাওয়া গেছে।

এসব তথ্য বিশ্লেষণ করে সিএনএন বলছে, কভিড-১৯ শনাক্ত হলে নারীদের চেয়ে পুরুষদের মৃত্যুর সম্ভাবনা ৫০ শতাংশ বেশি। 

আক্রান্ত ব্যক্তির রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা জোরদার না হলে প্রাণঘাতী কভিড-১৯ সহজেই শ্বাসতন্ত্রকে কাবু করে ফেলে। আর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শুধু জন্মগত নয়, মানুষের জীবনযাপনের ধরনের কারণেও কমবেশি হয় বলে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন।

সেদিক থেকে ধূমপান ও মদ্যপানের অভ্যাস ও সাধারণভাবে দুর্বল শারীরিক পরিস্থিতির কারণে দুর্বল হয়ে পড়া রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এই মহামারীতে মৃত্যুর মিছিল বাড়াচ্ছে বলে মনে করছেন তারা।

গ্লোবাল হেলথ ফিফটি/ফিফটি বলেছে, কভিড-১৯ আক্রান্তদের মধ্যে যাদের অবস্থা গুরুতর হয়ে থাকে, তারা অধিকাংশই উচ্চ রক্তচাপ, হৃদযন্ত্রের অসুখ, ফুসফুসের ক্রনিক রোগে আক্রান্ত। আর ওই ছয়টি দেশের লিঙ্গভিত্তিক তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, এইসব স্বাস্থ্যগত জটিলতায় ভোগেন পুরুষরাই।

সংস্থাটির ধারণা, পুরুষরা তাদের জীবনযাপনে একটু ঝুঁকিপূর্ণ অভ্যাসগুলোকেই বেছে নিয়ে থাকেন; যার প্রভাব পড়ে তাদের স্বাস্থ্যে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ২০১৫ সালের তথ্য অনুযায়ী, ৭ শতাংশ ধূমপায়ী নারীর বিপরীতে ধূমপায়ী পুরুষ হচ্ছে ৩৬ শতাংশ। অর্থ্যাৎ নারীর চেয়ে পুরুষ ধূমপায়ীর সংখ্যা ৫ গুণেরও বেশি।

মন্তব্য করুন

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh