জিরা পানির স্বাস্থ্য উপকারিতা

জিরা পানি ওজন কমাতে সাহায্য করে। লিভারসহ অন্যান্য অঙ্গ ভালো রাখতে এর জুড়ি নেই। কেননা এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আয়রন, ভিটামিন, অ্যান্টি-কার্সিনোজেনিক প্রপাটিজ, কার্বোহাইড্রেট, মিনারেল এবং বিভিন্ন উপকারি ফ্যাটি অ্যাসিড। এই সবগুলো উপাদানই স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটায়। 

জিরা পানির স্বাস্থ্য উপকারিতা পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো:

১. প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় জিরা পানি রাখতে পারেন। এটি ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে। এতে থাকে পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, সেলেনিয়াম, কপার ও ম্যাঙ্গানিজের মাত্রা বৃদ্ধি করে, যার প্রভাবে ত্বকের টক্সিক উপদানগুলো বেরিয়ে যায়।

২. জিরা পানি রোগ-প্রতিরাধ ক্ষমতার উন্নতি ঘটায়। এতে থাকা আয়রন শরীরে প্রবেশ করার পর লোহিত রক্ত কণিকার উৎপাদন বাড়িয়ে দেয়। সেই সঙ্গে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের ঘাটতিও দূর করে।

৩. এক গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত জিরা পানি পান করলে লিভারের বিষাক্ত পদার্থগুলো বের হয়ে যায়। ফলে লিভারের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। 

৪. বদ-হজম, গ্যাস ও অম্বলের সমস্যা দূর করতে জিরা পানি পান করুন। এক গ্লাস পানিতে পরিমাণ মতো জিরা ভিজিয়ে সেই পানি পান করলে এসব সমস্যা থেকে মুক্তি মিলবে। 

৫. জিরায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার। এই উপাদানটি শরীরে প্রবেশ করার পর মেটাবলিজম রেট বাড়িয়ে দেয়। এতে  খাবার দ্রুত হজম হয়। এতে থাকা ফাইবার ওজন কমাতেও সাহায্য করে। 

৬. একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত সকাল বেলা খালি পেটে জিরা পানি পান করলে ইনসুলিনের কর্মক্ষমতা বাড়ে। তাই চিকিৎসকরা ডায়াবেটিস রোগীদের জিরা পানি পানের পরামর্শ দিয়ে থাকেন। 

৭. প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এক গ্লাস করে জিরা পানি পান করলে শরীরে ইলেকট্রোলাইট ব্যালেন্স যেমন ঠিক হয়ে যায়, তেমনই পটাশিয়ামের ঘাটতিও দূর হতে থাকে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই ব্লাড প্রেসার কমতে শুরু করে।

প্রণালি

একটি পাত্রে পরিমাণ মতো পানি ও জিরা নিন। কমপক্ষে ৫ মিনিট ফুটিয়ে নিন। তারপর পানিটা ছেঁকে নিয়ে তাতে অল্প করে মধু মিশিয়ে ঝটপট পান করুন।


সূত্র : বোল্ডস্কাই।

মন্তব্য করুন

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh