ফনেটিক ইউনিজয়
সকালে ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস করুন

সকালে ঘুম থেকে ওঠা সত্যিই বেশ কষ্টের। যারা সকালে উঠতে চান, তাদের অবশ্যই রাতে তাড়াতাড়ি ঘুমাতে যাওয়া উচিত। দেরিতে ঘুমালে সকালে ওঠা খুব কষ্টসাধ্য ব্যাপার। তবে সকালে ঘুম থেকে ওঠা স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। রাত জেগে যারা পড়াশোনা করে অথবা অন্য কাজে নিজেদের ব্যস্ত রাখে, ছাত্রজীবনে অনেকেই এটা করে, ধীরে ধীরে তাদের এ অভ্যাসের পরিবর্তন করা উচিত। সেটা শরীরের জন্যও ভালো আবার ভবিষ্যতে কর্মক্ষেত্রের জন্যও অনেক কাজে লাগবে।
সকালে ঘুম থেকে উঠেলে সারা দিন আপনার অনেক ভালো কাটবে। পুরোটা দিন কাজে লাগাতে ও সুস্থ থাকতে সকালে ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস করা উচিত এবং এর জন্য বিভিন্ন নিয়ম অবলম্বন করা উচিত। আসুন, জেনে নিই সকালে ঘুম থেকে কীভাবে উঠবেন।
সকাল ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস করুন : তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস করা উচিত। সকালে ঘুম থেকে উঠলে আপনি সারা দিন কাজের জন্য অনেক সময় পাবেন। তাই প্রতিদিন রাত ১২টায় ঘুমানোর পরিবর্তে ঘুমের জন্য রাত ১০-১১টার সময় বেছে নিন।
ঘুমের জন্য ৮ ঘণ্টা : ঘুমের জন্য ৮ ঘণ্টা সময় নেয়া উচিত। তাই কেউ যদি ৬টায় ঘুম থেকে উঠতে চান, তাকে অবশ্যই ১০টার ভেতর ঘুমিয়ে পড়া উচিত।
বই পড়া : রাতে বই পড়ার অভ্যাস খারাপ না। রাতে বই পড়তে পড়তে ঘুমিয়ে যেতে পারেন। বই আপনার জ্ঞানকে বিকাশিত করবে।
টেলিভিশন : ঘুমানোর আগে একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত টেলিভিশন ও ল্যাপটপ ব্যবহার করবেন। ঘুমানোর আগে টেলিভিশন ও ল্যাপটপ গুছিয়ে ফেলুন।
ব্যায়াম : ঘুমাতে যাওয়ার আগে কিছু সময় হাঁটাহাঁটি ও ব্যায়াম করতে পারেন। ব্যায়াম করলে রাতে ভালো ঘুম হবে আপনার।
পরবর্তী দিনের রুটিন : ঘুমানোর আগে প্রথম যে কাজটি আপনাকে করতে হবে, সেটি হলো পরের দিনের রুটিন করুন। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত কাজের রুটিন ঠিক করে ডায়েরিতে লিখে রাখতে পারেন।
চা-কফি : অনেকের ঘন ঘন চা-কফি পানের অভ্যাস আছে। তবে বিশেষ করে সন্ধ্যার পর চা-কফি পান করা উচিত নয়। এটি রাতের ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায়।
রাতের খাবার: সকালে যারা ঘুম থেকে উঠতে চান, তারা রাতের খাবার রাত ৯টার মধ্যে খেয়ে নিন।

Disconnect