ফনেটিক ইউনিজয়
ঈদের সাজ

ঈদ মানেই অন্যরকম আমেজ। আত্মীয় স্বজনদের বাড়িই হোক আর নিজের বাড়িতেই হোক-এ দিনে একটু না সাজলে কি চলে? চলে না। সাজগোজের জন্য বেশকিছু টিপস রইলো আপনাদের জন্য-

এমনিতেই এবার প্রচন্ড গরম পড়েছে। এই গরমে মানানসই মেকআপ-এ হাজির না হতে পারলে মেকআপই লজ্জার কারণ হয়ে উঠতে পারে।
মুখে কিছু লাগাবার আগে, আপনার ত্বক Exfoliate করে নিন। আপনার মুখ পরিষ্কার করতে স্ক্রাব বা কোন exfoliating পেস্ট ব্যবহার করুন। যদি আপনি আপনার মুখেরকোন অংশ ওয়াক্সিং করার পরিকল্পনা করে থাকেন তবে এর আগে বা পরে Exfoliate করবেন না। ত্বকের ক্ষতি হওয়া থেকে বা অস্বস্তি থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্যই এটা থেকে বিরত থাকুন।
আপনার ত্বককে হালকা গ্লো  করার জন্য ময়শ্চারাইজারের একটি হালকা স্তর লাগিয়ে নিন। ময়শ্চারাইজার আপনার ফাউন্ডেশনকে caked-on দেখাতে বাধা দেয় এবং আপনার মেকআপের নীচে আপনার ত্বককে হেলদি রাখে।
আপনি ময়শ্চারাইজারের পরে ও ফেস মেকআপ এর আগে প্রাইমারের প্রয়োগ করতে অবহেলা করবেন না। এটি লাগাতে কয়েক সেকেন্ডের বাপার মাত্র, যা ময়শ্চারাইজারের পরে যায় কিন্তু মুখ মেকআপের আগে। নিউ ইয়র্ক সিটি-ভিত্তিক মেকআপ শিল্পী অশুনা শেরিফ বলেছেন, “Primers are definitely the way to go in summer”। “প্রাইমার একটি ভারী, অতিরিক্ত স্তরের মত মনে হয় না এবং এটি সত্যিই সঠিক জায়গায় মেকআপ ধরে রাখতে সাহায্য করে”।
আপনি creasing এবং caking থেকে আপনার মেকআপ রক্ষা করতে চান, হালকা মেকআপই যথেষ্ট। মুখে হালকা মেকআপ ব্যবহার করুন। ব্লাস, আই স্যাডো,  কনসিলার এবং বেসসহ ন্যাচারাল মেকআপ গ্রীষ্ম ঋতুর জন্য উপযুক্ত।
shimmer এবং ক্রিম ফাউন্ডেশন বা যেকোনো অতিরিক্ত উজ্জ্বল যেকোনো কিছু এড়িয়ে চলুন, যেহেতু আর্দ্রতা আপনাকে আরও চকচকে এবং ঘর্মাক্ত দেখাবে যদি আপনার ত্বকটি খুব বেশি স্পার্কল হয়।

পাউডার ব্লাশ এর পরিবর্তে ক্রিম ব্লাশ বা হালকা গুঁড়া ব্যবহার করুন, সঙ্গে ওভারটপে সামান্য ইনভিজিবল সেটিং পাউডার ব্যবহার করুন।
শরীর এবং গ্রীষ্মের উচ্চ তাপমাত্রার কারণে অধিকাংশ আইলাইনার’স গোলে পরবে বা সারা দিন বারে বারে লাগাতে হবে, আইলাইনার এবং মাশকারার জন্য জলরোধী এবং smudge free ফর্মুলা ব্যবহার করুন।
৭. শুধুমাত্র আপনার ঠোঁটই একটি অংশ যেখানে আপনি রং নিয়ে খেলা করতে পারেন। গ্রীষ্মে লিপ গ্লস ব্যবহার করবেন না, ভারী ম্যাট লিপস্টিক ব্যবহার করুন। মিষ্টি গোলাপী বা পীচ শেড ব্যবহার করুন একটি ট্রেডিশনাল সামারি লুকের জন্য, অথবা go bold with tangerine and grape colors for something more daring.
যেসব তরুণী সেদিন বাড়িতে থাকে তাদের সাজটা হবে ফ্রেশ, এট্রাক্টিভ ও কালারফুল। সে বাড়ির মেয়ে। তাকে দেখে বাবা মা ভাই বোন সবার ভালো লাগতে হবে। সে স্কিন টোনটা ঠিক রেখে কম্প্যাক্ট পাউডার দিয়ে ফেস’য়ে বেজড করে নিতে পারে। আই মেকআপ অনেক ব্রাইট হতে পারে। শ্যাডোটা কালারফুল ব্যবহার করা যেতে পারে অথবা কেউ যদি শ্যাডো ব্যবহার না করে সেক্ষেত্রে আই কাজল বা আই লাইনার লাগাতে পারে। সেগুলো কালারফুল হলে ভালো লাগবে। আর চুলটা অনেক ফ্যাশনেবল করে বাঁধতে পারে। লিপস্টিকটা হতে পারে অনেক ব্রাইট। এই হচ্ছে একজন তরুণীর ফ্যাশন।
অন্যদিকে বাড়ির নতুন বউকে হতে হবে মনোরম ও স্নিগ্ধ। তবে সে অবশ্যই কালারফুল হতে পারে। সে শাড়ি অথবা সেলোয়ার কামিজ পরতে পারে। হাত ভরা চুড়ি, গলায় নেকলেস ও কানে ঝুমকা পরলে মানাবে। আর সাজসজ্জার ক্ষেত্রে ফেস স্কিন একটু লিকুইড বেইজড হতে পারে। কালার টোনে ব্যবহার করতে পারে গোল্ড অথবা কপার টোনের শ্যাডো। এতে তাকে অনেক ব্রাইট দেখাবে। চোখে আই লাইনার বা কাজল ব্যবহার করা যেতে পারে। একটু ভারি করে মাশকারা ব্যবহার করলে ভালো লাগবে। ঠোটে লাইট টোনের লিপস্টিক ও কপালে বড় করে টিপ তাকে অনেক ম্যাচিউর ও কালারফুল করে তুলবে। চুল সে তার পছন্দ মতো একটি বেনী করে নিতে পারে। এখন অনেক স্টাইলের আর্টিস্টিক বেনী করা যায়। তাহলে বউকে দেখতে বউ এর মতোই লাগবে।
একজন মা’কে আমরা মার মতোই সাজে দেখতে পছন্দ করে থাকি। সেক্ষেত্রে একজন মা কম্প্যাক্ট পাউডার দিয়ে প্রথমে ফেসটাকে ফ্রেশ করে নিতে পারে। এরপর একটু লাইট কালারের ব্রাশঅন দিতে পারে। চোখ ভরে কাজল এক্ষেত্রে ভালো লাগবে। চুলটাকে টেনে ঘাড়ে একটি খোপা করে নিলেও সুন্দর লাগবে দেখতে। যদি টিপ ভালো লাগে এক্ষেত্রে একটি টিপ সে পরে নিতে পারে। কুঁচি দিয়ে শাড়ি পরার পর যেরকম দেখতে লাগবে সন্তানরা তাকে সেরকম মায়ের সাজেই যেন দেখতে চায়। এতে তাকে অনেক মনোমুগ্ধকর লাগবে।

Disconnect