করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১,৫২৩

বেইজিংয়ে ফেরা সবাইকে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশ: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৯:৩৮ এএম

ছবি: বিবিসি

ছবি: বিবিসি

চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মোকাবিলায় ছুটি কাটিয়ে দেশটির রাজধানী বেইজিংয়ে ফিরে যাওয়া প্রত্যেককে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। 

গতকাল শুক্রবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সর্বশেষ দেশটিতে এই পদক্ষেপ ঘোষণা করা হয়েছে বলে দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম এ তথ্য জানিয়েছে। 

চীনের বিভিন্ন অংশ থেকে বেইজিং ফেরা প্রত্যেককে হয় নিজস্ব তত্ত্বাবধানে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে বা কর্তৃপক্ষ নির্ধারিত কোনো স্থানে গিয়ে থাকতে হবে।

এদিকে চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন আজ শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) জানিয়েছে, গতকাল ২৪ ঘণ্টায় এই ভাইরাসে ১৪৩ জনের প্রাণহানি হয়েছে। এর মধ্যে চারজন ছাড়া বাকি সবাই ভাইরাসটির উৎপত্তিস্থল হুবেই প্রদেশের উহানের। এর ফলে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৫২৩ জন।   

এছাড়া নতুন করে দুই হাজার ৬৪১ জন নতুন করে আক্রান্ত হওয়ায় এর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৬ হাজার ৪৯২ জনে। ভাইরাসটির ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে এবারে চীনা নববর্ষের ছুটি বাড়ানো হয়।

চীনা নববর্ষের ছুটিতে বেইজিংয়ের দুই কোটি বাসিন্দার বেশিরভাগই দেশটির অন্যান্য অংশে পরিবারের কাছে চলে যান। ছুটি কাটিয়ে এসব বাসিন্দারা যখন ফিরতে শুরু করেছেন তখনই তাদের কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

চীনের বাইরে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে ২৫টি দেশে পাঁচশোরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছে। মারা গেছে হংকং, ফিলিপাইন ও জাপানে একজন করে মোট তিনজন। এছাড়া আফ্রিকার দেশ মিশরে এই প্রথম একজন আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব তদন্তে এই সপ্তাহে চীনে কাজ শুরু করতে যাচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) নেতৃত্বাধীন একটি দল। আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের নিয়ে গঠিত দলটি ভাইরাসটির ছড়িয়ে পড়া ও এর তীব্রতা তদন্ত করবে। 

এছাড়া এক হাজার সাতশোরও বেশি চিকিৎসাকর্মী কিভাবে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন তাও খতিয়ে দেখবে দলটি। দলটিতে ১২ জন আন্তর্জাতিক সদস্যের পাশাপাশি থাকবেন ১২ জন চীনা বিশেষজ্ঞও। -বিবিসি

প্রধান সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ | প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

অনলাইন সম্পাদক: আরশাদ সিদ্দিকী | ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh