ফনেটিক ইউনিজয়
মাইলফলকের প্রতীক্ষিত টেস্ট সিরিজ
তারিক আল বান্না
প্রথম দিনে সাকিব ব্যাট হাতে ৮৪ রান করার পর বল হাতেও ছিলেন সফল
----

আকাশে মেঘ তো বেশ কিছুদিন ধরেই। ফলে বৃষ্টির আশঙ্কা ছিল আগে থেকেই। বৃষ্টিতে খেলায় বিঘ্নও ঘটল। এরই মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়ার বহুল প্রতীক্ষিত দুই টেস্টের সিরিজও মাঠে গড়াল। তিন ফরম্যাটের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশ ৫০০ ম্যাচের মাইলফলক স্পর্শ করল ২৭ আগস্ট টেস্ট খেলতে নামার মধ্য দিয়ে। সাকিব আল হাসান টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে ৫০ ম্যাচে সাড়ে ৩ হাজার রান ও ১৫০ উইকেট লাভের প্রথম অলরাউন্ডার হিসেবে বিশ্ব রেকর্ডও গড়লেন। প্রথম দিনের কিছু ঘটনায় মনে হচ্ছে বেশ ভালোই জমবে সিরিজটি।
দুই টেস্টের সিরিজের প্রথমটি মাঠে গড়িয়েছে ঢাকার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে। ৪ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামে শুরু হবে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট ম্যাচটি।
এই ম্যাচের আগেই বাংলাদেশের কোচ হাথুরুসিংহে এবং অন্যতম সেরা তারকা সাকিব আল হাসান প্রতিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশ করার আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। এর বিপরীতে অজি তারকা নাথান লায়ন বলেছেন, ‘মাঠের চিত্রটা কেমন হবে, সেটা প্রথম দিনের খেলায় বলা যাবে না। কারণ, বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ দলটি অস্ট্রেলিয়া, টেস্ট ক্রিকেটের জন্মের সঙ্গে যাদের সম্পর্ক। অবশ্য টেস্ট অঙ্গনে অপেক্ষাকৃত নতুন হলেও বাংলাদেশ এখন শক্ত প্রতিপক্ষ, সেটা বিশ্বাস করে অস্ট্রেলিয়া দলও। অস্ট্রেলিয়ার জন্যও উদ্বিগ্ন হওয়ার মতো কারণও রয়েছে। সর্বশেষ ডজনখানেক টেস্ট ম্যাচের মধ্যে মাত্র একটিতে জিতেছে তারা। অবশ্য বাংলাদেশের বিপক্ষে তাদের জয় চারটি টেস্টেই। তবে ২০০৬ সাল আর ২০১৭ সাল এক নয়। এই সময়ের মধ্যে বাংলাদেশ বড় বড় দলের বিপক্ষে টেস্ট জিতেছে। নিজেদের মাটিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট জিতেছে। জিতেছে শ্রীলঙ্কার মাটিতেও।
 
বাংলাদেশের ‘৫০০’
১৯৮৬ সালের ৩১ মার্চ। শ্রীলঙ্কার মোরাতুয়ায় এশিয়া কাপের গ্রুপ পর্বে পাকিস্তানের মুখোমুখি হয়েছিল গাজি আশরাফ হোসেন লিপুর বাংলাদেশ। ক্রিকেটের আন্তর্জাতিক ময়দানে সেটা ছিল বাংলাদেশ দলের প্রথম ম্যাচ। ৩১ বছর পর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঢাকা টেস্ট দিয়ে দারুণ এক মাইলফলক স্পর্শ করল বাংলাদেশ। ক্রিকেটের তিন ফরম্যাট মিলিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশ ৫০০তম ম্যাচে মাঠে নেমেছে। ৩১ বছর আগের সেই এশিয়া কাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৭ উইকেটের হার দিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল বাংলাদেশ দল। ৪৯৯ ম্যাচে এ পর্যন্ত ১৩৫টি জয় তুলে নিতে পেরেছে বাংলাদেশ। হার ৩৪০ ম্যাচ, ১৫ ম্যাচ ড্র ও বাকি ৯ ম্যাচে নো রেজাল্ট। ৩৯৭ শতাংশ জয়। ১৭ বছর আগে টেস্ট অভিষেকের পর এ ফরম্যাটে ১০১তম ম্যাচ খেলতে নেমেছে বাংলাদেশ।

সাকিবের বিশ্ব রেকর্ড
বল হাতে টেস্টে ১৫০ উইকেটের মাইলফলক পেরিয়েছেন আগেই। নিজের ৫০তম টেস্টে এসে রোববার সাড়ে তিন হাজার রানের মাইলফলকও ছুঁয়েছেন। সেই সঙ্গে দারুণ এক রেকর্ডও নিজের করে নিলেন। টেস্টে দ্রুততম সময়ে ৩ হাজার ৫০০ রান ও ১৫০ উইকেটের কীর্তি এখন সাকিব আল হাসানের। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব এই কীর্তিতে যাঁদের পেছনে ফেলেছেন, সেই নামগুলো চমকে দেওয়ার মতোই। গ্যারি সোবার্স, ইয়ান বোথাম, ইমরান খান, কপিল দেব, রবি শাস্ত্রী, শন পোলক, জ্যাক ক্যালিস, ড্যানিয়েল ভেট্টোরি, অ্যান্ড্রু ফ্লিনটফরা সবাই পিছিয়ে আছেন সাকিবের চেয়ে।

সাকিব-তামিমের ব্যাটে টিকে থাকল বাংলাদেশ
সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল দুজনেই এই ম্যাচে ক্যারিয়ারের ৫০তম টেস্ট খেলতে নামেন। প্রথম ইনিংসে সাকিব ৮৪ এবং তামিম ৭১ রান করে তাঁদের ৫০তম টেস্টকে স্মরণীয় করে রাখলেন। সেই সঙ্গে তাঁদের ব্যাটে ভর করে ম্যাচের লড়াইয়ে টিকে আছে বাংলাদেশ। এটা ছিল তামিমের ২৩তম এবং সাকিবের ২২তম হাফ সেঞ্চুরি। সাকিব-তামিমের আগে ৫০ বা এর বেশি টেস্ট খেলেছেন বাংলাদেশের মাত্র তিনজন, মোহাম্মদ আশরাফুল (৬১), মুশফিকুর রহিম (৫৪) ও হাবিবুল বাশার (৫০)।

Disconnect