ফনেটিক ইউনিজয়
আবার সোনার জুতা মেসির ঘরে
মনিরুল ইসলাম

ইউরোপের শীর্ষ গোলদাতার পুরস্কার আবার নিজের ঝুলিতে পুরলেন লিওনেল মেসি। পুরস্কারটা কে জিতবেন, জানা ছিল আগে থেকেই। তা ছাড়া মেসি জিতেছেন বলে অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছিল বার্সেলোনায়। দীর্ঘ বিরতির পর এই পুরস্কার জিতলেন আর্জেন্টাইন তারকা। ২০০৯-১০ থেকে পরের চার মৌসুমে তিনবারই জিতেছিলেন। এরপর চার মৌসুম বিরতি। দুবার করে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো আর সুয়ারেজ জেতার পর মেসি আবার চুমু আঁকলেন সোনায় মোড়ানো জুতায়। এরপর চারটি বুট সামনে রেখে ছবিও তুললেন।
২০১৬-১৭ মৌসুমে লা লিগায় মেসি বার্সেলোনার জার্সিতে করেছেন ৩৭ গোল। যাতে প্রতিটি গোলে ২ পয়েন্ট করে পাওয়ায় আর্জেন্টাইন অধিনায়কের স্কোর হয়েছে ৭৪। তাঁর মতো এত স্কোর তুলতে পারেননি আর কেউই। ইউরোপের সব দেশের ঘরোয়া ফুটবলের গোলদাতাদের পয়েন্ট হিসাব করে সবচেয়ে এগিয়ে থাকা খেলোয়াড়কে  দেওয়া হয় ইউরোপিয়ান গোল্ডেন শু। এবার সবাইকে ছাড়িয়ে চতুর্থবারের মতো মেসি পেলেন পুরস্কারটি। এর আগে রোনালদোও সর্বোচ্চ চারবার এই পুরস্কার জিতেছেন। মেসি এবার তাঁর রেকর্ডে ভাগ বসালেন। নতুন মৌসুমের লিগে দুজনের যেমন শুরু হয়েছে; তাতে মেসি পঞ্চম গোল্ডেন বুট জেতার ব্যাপারে অনেক এগিয়ে আছেন।
শুধু কি তা-ই? সুখবর আরও আছে। আনুষ্ঠানিকভাবে বার্সেলোনার সঙ্গে নতুন চুক্তি করেছেন মেসি। স্প্যানিশ ক্লাব এটা নিশ্চিত করেছে। নতুন চুক্তি অনুযায়ী মেসি বার্সেলোনায় থাকবেন ২০২১ সাল পর্যন্ত। তাঁর রিলিজ ক্লজ ৭০০ মিলিয়ন ইউরো। আগের চুক্তির মেয়াদ শেষ হতো ২০১৮ সালের জুনে। আগামী ১ জানুয়ারির মধ্যে নতুন চুক্তি না হলে অন্য ক্লাবের সঙ্গে আলাপ করতে পারতেন ৩০ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড।
এদিকে চ্যাম্পিয়নস লিগে এবারের মৌসুমে মেসির দৌলতে দারুণ ছন্দে আছে তাঁর দল বার্সেলোনা। লা লিগা টেবিলে শীর্ষে রয়েছে তারা। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ আছে দুই নম্বরে, তবে বার্সার সঙ্গে ব্যবধান ১০ পয়েন্ট। পা না হড়কালে এবারে লা লিগা শিরোপা খুব সম্ভবত বার্সাই জিততে যাচ্ছে। আর গত মৌসুমের মতো মেসি এই মৌসুমেও ফর্ম ধরে রাখলে চ্যাম্পিয়নস লিগেও শিরোপার দাবিদার হবেন পিকে-মেসিরা।
খেলোয়াড়ি জীবন অত্যন্ত রঙিন হলেও ফুটবল-বিশ্বের অন্যতম সেরা ফরোয়ার্ড লিওনেল মেসির ব্যক্তিগত জীবন যেন সম্পূর্ণ অন্য রকম। সাদামাটা এক জীবন কাটান স্ত্রী আন্তোনেয়া রোকুজ্জো ও দুই সন্তান থিয়াগো ও মাতেওর সঙ্গে। খেলার সঙ্গে পারিবারিক জীবনকে এক করে ফেলতে চান না তিনি। তবে ১৩ বছর বয়সের শিশু মেসি যে প্রবল উৎসাহ নিয়ে বার্সেলোনায় এসেছিল, তার স্বপ্ন ও আকাক্সক্ষা এখনো আগের মতোই।

Disconnect