ফনেটিক ইউনিজয়
বিশ্বকাপের প্রস্তুতিতে যুবারা
তারিক আল বান্না

নিজেদের মাটিতে সর্বশেষ অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ তৃতীয় স্থান লাভ করে। এটি ছিল বাংলাদেশের ইতিহাসে সেরা পারফরম্যান্স। এর আগেও দেশের মাটিতে যুব বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে, তবে গতবারের মতো ভালো হয়নি ফলাফল। এবার বিশ্বকাপ বাইরের মাটিতে। তাই আগের ফলাফল ধরে রাখতে জুনিয়র টাইগারদের চলছে টানা অনুশীলন।
আগামী বছরের ১৩ জানুয়ারি থেকে নিউজিল্যান্ডে বসছে যুব বিশ্বকাপ ক্রিকেটের আসর। এই মহাযজ্ঞ সামনে রেখে ১ ডিসেম্বর থেকে মিরপুরে শুরু হয়েছে সাইফ, আফিফদের প্রস্তুতি ক্যাম্প। এটি চলবে ১৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত।
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ন্যাশনাল গেমস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার এ ই ম কাউসার বলেন, ‘মিরপুরে আমরা ক্যাম্প শুরু করেছি। প্রথম সপ্তাহে শুধু ফিটনেস ট্রেনিং চলবে। দ্বিতীয় সপ্তাহে ক্যাম্প চলে যাবে বিকেএসপিতে। সেখানে সেন্টার উইকেটে প্রস্তুতি এবং গেম সেন্সের কাজ চলবে। এরপর তিনটি ওয়ানডে প্রস্তুতি ম্যাচ রয়েছে। ছেলেরা ম্যাচগুলো খেলবে একটি আমন্ত্রিত একাদশের বিপক্ষে। এই আমন্ত্রিত একাদশ আমরা সাজাব এইচপি ও প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেটে যারা ভালো খেলেছে তাদের সমন্বয়ে।’ তিনি আরও বলেন, ‘১৮ ডিসেম্বর থেকে তাদের তিন দিনের ছুটি দেওয়া হবে পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে। এরপর যেহেতু ৪২ দিনের লম্বা সফর। আর ২৬ ডিসেম্বর আমাদের দল নিউজিল্যান্ডের উদ্দেশে রওনা হবে।’ এদিকে বিপিএলের চলতি আসরে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ৫ জন খেলছেন (সাইফ হাসান, আফিফ হোসেন ধ্রুব, কাজী অনিক, ইয়াসির আরাফাত মিশু ও নাইম হাসান)। ফলে ক্যাম্পের শুরু থেকে তাঁরা দলের সঙ্গে থাকতে পারছেন না। তবে তাঁদের দল যদি টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে পড়ে, তাহলে সঙ্গে সঙ্গে ক্যাম্পে যোগ দিতে হবে তাঁদের। তা না হলে ১২ ডিসেম্বর ফাইনালের পর তাঁরা ক্যাম্পে অনুশীলন করবে বলে জানান এইচপি ম্যানেজার।
আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপকে সামনে রেখে গেল ৭ জুলাই থেকে শুরু হয়েছিল টাইগারদের প্রস্তুতি ক্যাম্প। যেখানে শুরুতেই ফিটনেস নিয়ে কাজ করেছেন কোচ ডেমিয়েন রাইটের শিষ্যরা। প্রস্তুতি ম্যাচ দেশের মাটিতেই নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগি করে এবং এইচপি দলের সঙ্গে খেলেছে লাল-সবুজের যুবারা। এরপর সেই ঘরের মাঠেই নেপালের বিপক্ষে তিনটি এবং আফগানিস্তানের বিপক্ষে খেলেছে ৫ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ।
নেপালের বিপক্ষে ২-১ এ সিরিজ নিজেদের করার পর আফগানিস্তানের সঙ্গে ৩-১ এ সিরিজ হারে সাইফদের বিশ্বকাপ প্রস্তুতি নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছিল। তবে সম্প্রতি এশিয়া কাপে শক্তিশালী ভারতকে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনালে পাকিস্তানের বিপক্ষে বৃষ্টি আইনে ২ রানে হারলেও সেই শঙ্কা অনেকটাই দূরে ঠেলে দিয়েছেন। এশিয়া কাপের ফলাফলে উজ্জীবিত হয়ে এবার বিশ্বকাপেও দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের লক্ষ্যেই বিশ্বকাপে মিশনে রওনা হবে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। যার চূড়ান্ত প্রস্তুতি শুরু হয়েছে।
যুব বিশ্বকাপে অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশ, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, ভারত, নিউজিল্যান্ড, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, জিম্বাবুয়ে, নামিবিয়া, আফগানিস্তান, কেনিয়া, কানাডা, পাপুয়া নিউগিনি ও আয়ারল্যান্ড। প্রথম পর্বে বাংলাদেশ ‘সি’ গ্রুপে খেলবে ইংল্যান্ড, নামিবিয়া ও কানাডার সঙ্গে। প্রথম পর্ব শেষে চার গ্রুপের শীর্ষ দুটি করে আটটি দল খেলবে সুপার লিগে। আর বাকি দলগুলো খেলবে প্লেট পর্বে। যুব বিশ্বকাপ থেকেই উঠে আসেন আগামী দিনের বিশ্ব তারকারা।

Disconnect