ফনেটিক ইউনিজয়
বাংলাদেশ দিয়েই শুরু হাথুরুর
মনিরুল ইসলাম

জাতীয় ক্রিকেট দলের কোচের দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে, এটি পুরোনো খবর। ২০১৪ সালের মে মাস থেকে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব সামলাচ্ছিলেন এ লঙ্কান কোচ। তাঁর সঙ্গে বিসিবির চুক্তি ছিল ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত। কিন্তু কেন ছিঁড়ে গেছে বাংলাদেশের সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের সুতো, কেনই বা হঠাৎ আলাদা হয়ে গেল দুটি পথ, সবাই সে বিষয়টিই যেন জানতে উদগ্রীব ছিলেন এত দিন। কারণ, বাংলাদেশ ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে সফল কোচ তিনি। ১০ বছর ধরেই তিনি ক্রিকেটের উন্নয়নে রেখেছেন ব্যাপক ভূমিকা।
এর কারণ সংবাদমাধ্যমে জানালেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের বিদায়ী কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের সঙ্গে কথা বলার পর সভাপতি জানান, ‘দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের প্রথম থেকেই তার একটা অসন্তুষ্টি ছিল। খেলোয়াড়দের মানসিকতা নিয়েও তার আপত্তি ছিল। এই যে সাকিব (আল হাসান) টেস্ট খেলল না, এটাও সে মেনে নিতে পারেনি। সে একটু অন্য ধরনের, সবাই তো এক মানসিকতার নয়। তার কথা হচ্ছে, কেন ও (সাকিব) খেলবে না? এ রকম গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়, গুরুত্বপূর্ণ সময়ে কেন দেশের হয়ে খেলবে না? এ ছাড়া দক্ষিণ আফ্রিকায় সফরের সময় আরও কিছু ঘটনা ঘটেছে। তাতে তার মনে হয়েছে এই দলকে আর  দেওয়ার কিছু নেই, চলে যাওয়াই ভালো। সে মনে করেছে, এভাবে চললে বাংলাদেশকে সামনে এগিয়ে নেওয়া তার পক্ষে সম্ভব নয়।’
তবে ‘বাংলাদেশ দল নিয়ে তার হতাশা নেই। তিনি বরং দলের অনেক প্রশংসা করেছেন। দলকে এগিয়ে নিতে কী কী বাধা আসতে পারে, তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছেন আমাদের সঙ্গে। আসলে এমন সমস্যা সব জায়গায় থাকে।  খেলোয়াড়ের সঙ্গে কোচের দ্বিমত থাকতে পারে, রাগ থাকতে পারে। এটি বড় কিছু নয়। তবে তিনি একটা কথা বলেছেন, যত বড় ক্রিকেটারই হোক না কেন, তার চেয়ে  দেশ বড়। ব্যক্তিগত সমস্যা থাকতেই পারে, কিন্তু সে জন্য দেশের ক্ষতি করা যাবে না। এই বার্তা যেন প্রত্যেক ক্রিকেটারের কাছে পৌঁছানো হয়, সে কথাও হাথুরু বলেছেন,’ এমনটাও জানালেন নাজমুল হাসান।
তবে হাথুরু শুধু মৌখিকভাবেই পদত্যাগের ব্যাখ্যা দিয়েছেন। গত অক্টোবরে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের মাঝপথে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে পদত্যাগপত্র দেন টাইগারদের প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। এদিকে হাথুরুসিংহেকে প্রধান কোচ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি)। ভারতের বিপক্ষে আসন্ন টি-টোয়েন্টি সিরিজের শুরুতে শ্রীলঙ্কা দলের দায়িত্ব নিচ্ছেন তিনি। ২০ ডিসেম্বর থেকে শ্রীলঙ্কা দলের কোচ হিসেবে তাঁর নিয়োগ শুরু হবে। সে সময় শ্রীলঙ্কা ভারতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে। এরপর দুই টেস্টে সিরিজ খেলতে লঙ্কানদের বাংলাদেশে আসার কথা। সেখানেই দলের সঙ্গী হবেন হাথুরু। এর আগে একটি ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজও হতে পারে বাংলাদেশে। যেখানে শ্রীলঙ্কা তিন দলের একটি। তাই বাংলাদেশ সফর দিয়েই শুরু হবে ‘শ্রীলঙ্কার কোচ’ হাথুরুর।

Disconnect