ফনেটিক ইউনিজয়
সা ক্ষা ৎ কা র
‘জয়ের ধারা ধরে রাখতে চাই’

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের নবাগত দল বসুন্ধরা কিংসের হয়ে প্রথম ম্যাচেই গোল পেয়েছেন গত আসরে সর্বোচ্চ ৮ গোল করা তৌহিদুল আলম সবুজ। আগামীতে দলের পরিকল্পনা নিয়ে তার সঙ্গে কথা বলেছেন মোয়াজ্জেম হোসেন রাসেল

মালদ্বীপের নিউ রেডিয়েন্ট ক্লাবের বিপক্ষে প্রাক মৌসুম ম্যাচে ৪-১ গোলে জয়লাভ করেছে বসুন্ধরা কিংস। অধিনায়ক হিসেবে নিজের প্রথম ম্যাচটি কেমন ছিল?
এই ম্যাচের জন্য বসুন্ধরা কিংস আগেই প্রস্তুতি নিয়েছে। মাঠে নামার আগে দেশি-বিদেশিদের নিয়ে কোচ কয়েকটি ওরিয়েন্টেশন ক্লাস করিয়েছেন। কিভাবে সমন্বয় করে খেলতে হবে সে বিষয়গুলোও বলেছেন। মাঠে এর প্রমাণ কতটা পাওয়া যায় সেটা নিয়েই চিন্তা ছিল। পরে দেখলাম কোচ যেভাবে বলেছেন আমরা তার প্রায় পুরোটাই করতে পেরেছি। নতুন দলের হয়ে প্রথম ম্যাচেই জয় লাভ করায় অবশ্যই ভালো লাগছে। জয়ের ধারা ধরে রাখতে চাই।

অধিনায়ক হিসেবে প্রথম ম্যাচেই গোল পেয়েছেন। স্ট্রাইকার হিসেবে কি আলাদা কোনো লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নেমেছিলেন?
দলে স্ট্রাইকারের ভূমিকা হলো গোল করার। দল তার গোলের দিকেই তাকিয়ে থাকে। আমার লক্ষ্য ছিল গোল করা, সেটা করতে পেরেছি বলে অনেক ভালো লাগছে। যে লক্ষ্য নিয়ে দল আমাকে নিয়েছে সেটা পূরণ করার লক্ষ্যটা থাকে প্রথম।

২০১৮ বিশ্বকাপ খেলা কলিনড্রেস এবার বসুন্ধরা কিংসে আপনাদের সঙ্গী। তার সঙ্গে সম্পর্কটা কেমন?
বিশ্বকাপে খেলা খেলোয়াড়ের সঙ্গে একই টিমে থাকা সৌভাগ্যের। কলিনড্রেস উঁচু মানের খেলোয়াড়। এমন বিশ্বমানের খেলোয়াড়ের সঙ্গে খেললে অবশ্যই জয়ের কাজটা সহজ হয়ে যায়। তার সঙ্গে  ড্রেসিংরুম ভাগাভাগি করা, একসঙ্গে অনুশীলন করা, মাঠে খেলা আমাদের জন্য সৌভাগ্যের। আমরা শুরু থেকেই তার সঙ্গে মিশে চেষ্টা করছি যতটা সম্ভব শেখা যায়, পাশাপাশি সম্পর্ক যতটা গভীর করা যায়।

দলে আরও কয়েকজন বিদেশি খেলোয়াড় রয়েছে। তাদের সম্পর্কে বলতে চান?
নীলফামারীতে নিউ রেডিয়েন্ট ক্লাবের বিপক্ষে যারা খেলেছে তারা সকলেই ভালোমানের বিদেশি খেলোয়াড়। অন্যান্যরা অনেক ভালো। রেডিয়েন্টের বিপক্ষে ম্যাচে বেলফোর্ট ও জ্যালো গোল পেয়েছে। বাকিরাও ভালো করছে। ক্যাম্পে অনেক বিদেশিই আছে। দেখার বিষয় ক্লাব কাদের নিয়ে দল সাজায়। কারণ সকলকে তো দলে রাখার সুযোগ নেই। বেছে বেছে ভালোমানের খেলোয়াড়দের দলে রাখবে টিম ম্যানেজমেন্ট।

আসন্ন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে বসুন্ধরা কিংস কেমন করবে বলে আশা করছেন?
গত মৌসুমে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশীপ লিগের শিরোপা জিতে প্রিমিয়ারে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে। মূলত তারপর থেকেই আগামী মৌসুমের জন্য দল গঠন করা শুরু হয়। সে কারণেই অবশ্যই আমরা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্যই খেলবো। মৌসুমের সবক’টি শিরোপা ঘরে তোলার চেষ্টা থাকবে। পাশাপাশি এএফসি কাপ খেলার যোগ্যতা অর্জন করে  সেখানেও ভালো করতে চাই। নতুন হিসেবে যতটা ভালো দল গড়া যায় ঠিক ততটাই ভালো দল গড়েছে বসুন্ধরা কিংস। সে কারণেই এবার অভিষেক মৌসুমেই প্রত্যাশা বেশি। নতুন ক্লাবে খেলা সব সময়ই নতুন একটি চ্যালেঞ্জ। স্প্যানিশ কোচ অস্কার ব্রুজন এরই মধ্যে কাজ শুরু করেছেন আমাদের নিয়ে। তার পরিকল্পনা মতো নিজেকে মানিয়ে  নেয়ার চেষ্টা করছি। উইথ দ্য বল উনি বেশি অনুশীলন করাচ্ছেন।

Disconnect