গল্প বলতে ভালোবাসি: নির্ঝর

মানসুর আলম নির্ঝর। ফাইল ছবি

মানসুর আলম নির্ঝর। ফাইল ছবি

বর্তমান সময়ের জনপ্রিয়  টিভি নির্মাতা মানসুর আলম নির্ঝর। তার বর্তমান ব্যস্ততা ও অন্যান্য প্রসঙ্গ নিয়ে কথা বলেছেন মাহমুদ সালেহীনের।

বর্তমান সময়ে আপনি বেশ ভালো ভালো নাটক নির্মাণ করছেন। নির্মাতা হওয়ার গল্প শুনতে চাই?
নির্মাণে আসার গল্প খুবই খারাপ প্যাথেটিক। ইউল্যাবে পড়াশোনার সময় কিছু ভাই ব্রাদার ছিল তাদের মধ্যে নাহিদ ভাই একজন। উনার মাধ্যমে তাদের প্রোডাকশন হাউজের জয়েন করা শুটিং দেখতে, আড্ডা দিতে গিয়ে  তারপর আস্তে আস্তে ভালো লাগা। এরপর অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর হিসেবে কাজ শুরু। 

কার কার সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা হয়েছে?
বাংলাদেশের মোস্তফা মনন, নেওয়াজ নাহিদ কলকাতার অর্জিত মুখার্জি ,পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় তাদের সাথে কাজ করেছি। সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করেছি প্রায় ছয় বছর। তার মধ্যে মোস্তফা মনন এবং অরিজিৎ মুখার্জির সাথে সবচেয়ে বেশি কাজ করা হয়েছিল। ২০১৬ এর জুনে আমার নিজের প্রথম প্রোডাকশন শুরু। নাটকটির নাম ছিল ছাড়পত্র। 

নাটক নির্মাণে আসার কারণ বলুন?
আমার গল্প বলতে ভালো লাগতো সবসময় বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিতে গিয়ে তাদের গল্পে আটকে রাখতাম, মোটকথা গল্পে আটকে রাখার প্রবণতা ছোটকাল থেকেই ছিল। আর যেহেতু নাটকের মূল জায়গাটা হলো গল্পের তাই সেই ভালোলাগা থেকেই নাটক নির্মাণে আসা।

আপনার নির্মিত প্রিয় কাজ?
এবার পূজোয় ৪৩ নম্বর প্রোডাকশন শেষ হলো। ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে আরও নতুন ৬টি কাজ আসছে। এর মধ্যে আমার প্রিয় কাজ বলতে গেলে, কিছুটা সময়, নীলকন্ঠ পাখির অপেক্ষায় ,তুমি-রবে-নীরবে হাইওয়ে, ছাড়পত্র, যাদুর শহর নতুন ভোর। এগুলো মোটামুটি আমার পছন্দের কাজ। তবে পুরোপুরি স্যাটিসফ্যাকশন হয় না আসলে। আমার সব সময় মনে হয় কোথাও আরো একটু এফোর্ড  দিলে হয়ত আরো  ভালো লাগতো। সত্যি কথা বলতে পুরোপুরি স্যাটিসফাই হওয়া যায়না। তবে বেশ কিছু কাজে দর্শকদের প্রচুর ফিডব্যাক পেয়েছি যেগুলো আমাকে অনুপ্রেরণা জাগায়। 

বর্তমান ব্যস্ততা সম্পর্কে বলুন? 
নতুন একটি ওয়েব ফিল্ম এর কাজ চলছে গল্পের নাম জার্নি টু ঢাকা ।খুবই ভালো গল্প এবং পুরোটা সাসপেন্স থ্রিলার। দর্শক উঠতে পারবে না এটা আমি বলতে পারি। দুটি রাতের গল্প যেটা বাস্তব ঘটনা থেকে প্রভাবিত হয়ে করা হচ্ছে। যদিও গল্পের কারণে কিছু চেঞ্জ থাকবে তবে আশা করি দর্শকদের ভালো লাগবে। আর ২১ সালে মোটামুটি সিনেমা বানানোর টার্গেট নিয়ে নিয়েছি, যেটার প্রস্তুতি চলছে। বাংলাদেশের খুব বড় একজনের বায়োপিক বানাবো তবে পারমিশনের অপেক্ষায় আছি। নাম বলতে চাচ্ছি না ব্যাপারটা সাসপেন্স থাকুক। 

আপনার আইডল কে ?
আহামরি তেমন কেউ নেই। তবে অনুরাগ ক্যাশপ হতে পারে। তার কাজগুলো ভালো লাগে খুব। 

করোনাকালীন সময় কি ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন? 
করো না আমার জন্য আশীর্বাদ আমার লাইফের বেস্ট সময় পার করেছি। লকডাউনের সময়গুলোতে বাসায় থাকতাম, স্ত্রীর সাথে কাজে হেল্প করতে পেরেছি, বাসায় সময় দিতে পেরেছি। আর্থিকভাবে যদিও কিছুটা ক্ষতি হয়েছে তবে আমার তেমন বেগ পেতে হয়নি। কুরবানীর ঈদে কাজে নেমে ৬টি কাজ করে আবার বাসায় ঢুকে যাই। স্বাস্থ্যবিধি মেনে এখন কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh