ধনী দেশগুলোর প্রতি টিকা ‘দান' করার আহ্বান ইউনিসেফের

বিশ্বের সবচেয়ে ধনী সাতটি দেশ (জি-৭) ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্যভুক্ত দেশগুলো তাদের নিজ দেশের টিকাদান কমসূচির লক্ষ্য ঠিক রেখেই ভ্যাকসিনের অনেক প্রয়োজন রয়েছে এমন দেশগুলোকে ১৫ কোটিরও বেশি টিকা দান করতে পারে। 

এছাড়া ভারত টিকা রফতানি বন্ধ করায় অনেক দেশ এখন চরম সংকটের মুখোমুখি। তাই ধনী দেশগুলোর প্রতি সংকট নিরসনে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক।

ব্রিটেনের প্রতিষ্ঠান এয়ারফিনিটি পরিচালিত এক জরিপে বলা হয়, বিশ্বের সবচেয়ে ধনী সাতটি দেশ এবং ইইউ তাদের জুন, জুলাই ও আগস্টের জন্য মজুত করা মাত্র ২০ শতাংশ টিকা একেবারে দরিদ্র দেশগুলোর জন্য কোভ্যাক্সের টিকাদান কমসূচির সাথে শেয়ার করে বিশ্বের ভ্যাকসিনের ঘাটতি পূরণ করতে সহায়তা করতে পারে।

গত সপ্তাহে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধানও ভ্যাকসিন বৈষম্যের তীব্র সমালোচনা করে ধনী দেশগুলোর প্রতি উদার মানসিকতা নিয়ে বিপর্যয়ের আশঙ্কার মুখে থাকা দেশগুলোর পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছিলেন।

গতকাল সোমবার (১৭ মে) একই আহ্বান জানালেন ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক হেনরিয়েটা ফোর। জি-৭ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোর উদ্দেশে ভ্যাকসিন বিতরণ ব্যবস্থা কোভ্যাক্সে যত বেশি সম্ভব ভ্যাকসিন দান করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। 

তিনি বলেন, ভারতে কোভিড-১৯-এর সংক্রমণ ব্যাপকভাগে ছড়িয়ে পড়ছে, সেকারণে সে দেশ সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি অপেক্ষাকৃত স্বল্প মূল্যের অ্যাস্ট্রোজেনেকার ভ্যাকসিন রফতানি বন্ধ করে দেয়ায় বিভিন্ন দেশ সংকটে পড়তে চলেছে। 

তাই জি-৭ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোর উদ্দেশ্যে দরিদ্র দেশগুলোকে কিছু টিকা দিয়ে দেয়ার অনুরোধ জানিয়ে হেনরিয়েটা বলেন, এই মুহূর্তে জি-৭ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোর হাতে থাকা টিকার মধ্যে অতিরিক্ত যেটুকু আছে তা দান করে খণ্ডকালীন চাহিদা পূরণ করা ন্যূনতম, প্রয়োজনীয় ও জরুরি দাবি।

আগামী জুনে সম্মেলনের জন্য যুক্তরাজ্যের তাদের জি-৭ সদস্য দেশ- কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, জাপান ও যুক্তরাষ্ট্রকে আমন্ত্রণ জানানোর কথা রয়েছে।

এদিকে ইউনিসেফ জানায়, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) ও কোয়ালিশন ফর ইপিডেমিক প্রিপারেডনেস ইনোভেশনের (সিইপিআই) পাশাপাশি গ্যাভি দি ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্সের নেতৃত্বে চলা কোভ্যাক্স কর্মসূচি তাদের পরিকল্পিত বিতরণের জন্য ১৯ কোটি ডোজ টিকা পাওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছে।

বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল দেশ ভারতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ হঠাৎ করে অনেক বেড়ে যাওয়ার কারণে বিশ্বব্যাপী টিকার ঘাটতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। -এএফপি ও ডয়চে ভেলে

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh