টানেলে বিমান উড়িয়ে বিশ্বরেকর্ড

টানেলে ইতালির এয়ার রেস প্রতিযোগী ও স্টান্ট পাইলট দারিও কোস্তার বিমান

টানেলে ইতালির এয়ার রেস প্রতিযোগী ও স্টান্ট পাইলট দারিও কোস্তার বিমান

প্রায় পৌনে দুই কিলোমিটার (১ হাজার ৭৩০ মিটার) লম্বা টানেলের ভেতর বিমান উড়িয়ে বিশ্বরেকর্ড করেছেন ইতালির এয়ার রেস প্রতিযোগী ও স্টান্ট পাইলট দারিও কোস্তা। তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরের টানেলে তিনি বিমান চালান।

গত ৪ সেপ্টেম্বর অস্ট্রিয়ান কোম্পানি রেডবুল তাদের ফেসবুক পেজে দারিও কোস্তার এই দুঃসাহসী ফ্লাইটের ভিডিওচিত্র প্রকাশ করেছে। সেই চিত্রে দেখা গেছে, একটি সুড়ঙ্গ থেকে বিমান চালানো শুরু করেছেন কোস্টা, সেই সুড়ঙ্গের শেষ মাথায় পৌঁছানোর আগেই তার ছোট্ট উড়োজাহাজটি ভূমি থেকে প্রায় দেড়ফুট উচ্চতায় উঠে গেছে।

সেই টানেল পেরিয়ে অল্প সময়ের জন্য খোলা সড়কের ওপর দিয়ে উড়ে যায় তার বিমান, প্রবেশ করে দ্বিতীয় টানেলে। এটি আগেরটির চেয়ে অপেক্ষাকৃত দীর্ঘ ছিল।

দীর্ঘ সেই টানেলের ভেতর ভূমি থেকে প্রায় দুই ফুট উচ্চতায় অবলীলায় বিমানটি উড়িয়ে নিয়ে যান দারিও। টানেলে পেরোনোর পরই উড়োজাহাজটিকে চুড়ান্ত টেক অফ করান তিনি।

চরম ঝুঁকিপূর্ণ এই ফ্লাইট সফলভাবে শেষ করার পর উল্লাসে চিৎকার করতে দেখা যায় তাকে, এক পর্যায়ে আনন্দে কেঁদেও ফেলেন দারিও।

রেডবুল কোম্পানি জানিয়েছে, ইস্তাম্বুলের কাতালকা এলাকার ওই দুই সুড়ঙ্গের মিলিত দৈর্ঘ ২ দশমিক ৬ কিলোমিটার (২ হাজার ৬০০ মিটার)। দারিও কোস্তা তার উড়োজাহাজে পাড়ি দিয়েছেন সেই সুড়ঙ্গদ্বয়ের প্রায় পৌনে ২ কিলোমিটার (১ হাজার ৭৩০ মিটার) পথ এবং পুরো যাত্রাপথে তার উড়োজাহাজের গতি ছিল ঘন্টায় ২৪৫ দশমিক ০৭ কিলোমিটার।

রেড বুল জানিয়েছে, বিশ্বের ইতিহাসে টানেলের ভেতর বিমান চলাচলের ঘটনা এটিই প্রথম।

গত ৪ সেপ্টেম্বর ফেসবুকে এই ভিডিও আপলোড করে রেডবুল। ইতোমধ্যে সেই ভিডিও শেয়ার হয়েছে ৬২ হাজার বার, এবং তাতে মন্তব্য (কমেন্ট) করেছেন ১ লাখ ৪০ হাজারেরও বেশি মানুষ।

ফিন জেমস নামে এক ব্যক্তি কমেন্টে লিখেছেন, ‘একদম শ্বাসরুদ্ধকর একটি ভিডিও। অভিনন্দন দারিও। তুমি যখন যখন বিমান চালাচ্ছিলে, আমার লিভিং রুমে বসে সেই ভিডিও দেখার সময় আমরা দম বন্ধ হয়ে আসছিল। বিমানের ওপর এই পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ দেখতে পারাটাও অসাধারণ এক অভিজ্ঞতা।’

টিমোথি অ্যাডাম নামে এক ফেসবুক ব্যবহারকারী কমেন্টে লিখেছেন, ‘পুরো ভিডিওটি দেখার পর আমি মাটিতে পড়ে গিয়েছিলাম। এটি ছিল বিমান উড্ডয়নের ইতিহাসে সবচেয়ে দুঃসাহসী ফ্লাইট।’

অনেকে অবশ্য ঠাট্টা করতেও ছাড়েননি। এক ফেসবুক ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘মিঃ কোস্তা, দেখা যাচ্ছে তুমি সুড়ঙ্গ পার হয়েছ ঠিকই , কিন্তু টোল দিতে ভুলে গেছ। কর্তৃপক্ষ কিন্তু এ ব্যাপরে তোমার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারে।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //