ইউক্রেনের রাজধানীতে ঢুকে পড়েছে রুশ সেনারা

ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, রুশ সেনারা কিয়েভের পার্লামেন্ট থেকে প্রায় ৯ কিলোমিটার উত্তরের শহর ওবোলনে ঢুকে পড়েছে। শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা টুইটে এ খবর জানান বলে জানিয়েছে বিবিসি।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ওই টুইটে রুশ সেনাদের শত্রু হিসেবে উল্লেখ করে তাদের ঠেকাতে মলোতভ ককটেল তৈরির জন্য কিয়েভের বাসিন্দাদের অনুরোধ জানিয়েছে। তাদের নিরাপদে থাকতে বলা হচ্ছে। টুইটে বলা হয়, ‘বাসিন্দারা, সতর্ক হোন। বাড়ি থেকে বের হবেন না।’

এর আগে ইউক্রেনের সেনাবাহিনী বলেছে, রাজধানী কিয়েভের উপকণ্ঠে দিমার ও ইভানকিভ এলাকায় সংঘর্ষ চলছে। ওই এলাকায় রাশিয়ার বেশ কিছু সাঁজোয়া যান ঢুকে পড়েছে। রুশ সেনার কিয়েভের খুব কাছে পৌঁছে গেছে। ইউক্রেনের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ভাদিম দেনিসেনকো রয়টার্সকে বলেছেন, গত ২৪ ঘণ্টায় রাশিয়া ৩৩টি বেসামরিক জায়গায় হামলা চালিয়েছে।

ইউক্রেন সেনাবাহিনী এর আগে ফেসবুক পেজের পোস্টে বলেছে, কিয়েভের উত্তর পশ্চিমে রুশ সেনাদের প্রতিহত করতে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে ইউক্রেনের সেনারা। রাশিয়ার সেনাবাহিনী যাতে কিয়েভের দিকে আর এগোতে না পারে সে জন্য তেতেরিভ নদীর সীমান্তবর্তী একটি সেতু ধ্বংস করে দিয়েছে ইউক্রেনের সেনারা।

ইউক্রেনের সেনাবাহিনী আগে জানিয়েছে, কিয়েভের একটি বিমানঘাঁটি নিজেদের দখলে রেখেছে। এই বিমানঘাঁটি দখলে নিলে রুশ সেনাবাহিনীর কিয়েভে ঢোকা সহজ হবে। 

কিয়েভে সংবাদ সংগ্রহের কাজ করছেন বিবিসির সাংবাদিক পল অ্যাডামস। তিনি জানিয়েছিলেন, রুশ সেনারা কিয়েভের দিকে যতই এগোচ্ছে ততই গোলাগুলির শব্দ বাড়ছে।

ইউক্রেনের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা অ্যান্তন হেরাসচেনকো সতর্কতা জারি করে বলেছেন আজকের দিনটি খুবই কঠিন। রাশিয়া উত্তর পূর্ব ও উত্তর পশ্চিম দিক দিয়ে কিয়েভে ঢোকার চেষ্টা করছে।

ইউক্রেনের গোয়েন্দা সংস্থার একটি সূত্র ইউক্রেনস্কা প্রাভদা ওয়েবসাইটে রাশিয়ার হামলার পরিকল্পনার বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছে। তবে এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্যপ্রমাণ পাওয়া যায়নি।

গোয়েন্দা সংস্থার ওই সূত্রটি বলছে, রাশিয়া কিয়েভের বিমানবন্দর দখল করতে চায়। কিয়েভের বিদ্যুৎ ও যোগাযোগব্যবস্থা নষ্ট করে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে রাশিয়ার। মন্ত্রিসভা, পার্লামেন্টের মতো সরকারি ভবনের নিয়ন্ত্রণ নেবে রাশিয়া। রাশিয়া জার্মানির মতো ইউক্রেনকেও পূর্ব ও পশ্চিম দুই ভাগে ভাগ করতে চায়। তবে গোয়েন্দা সূত্রটির দেওয়া এই তথ্যের বিষয়ে কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //