ইউক্রেনে আরো অস্ত্র পাঠাবে যুক্তরাষ্ট্র

ইউক্রেনকে আরো ১০০ কোটি ডলারের অস্ত্র সহায়তা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। শিগগিরই এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া হবে বলে জানা গেছে।

গতকাল বুধবার (১৫ জুন) এক প্রতিবেদনে এ কথা জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই সহায়তা প্যাকেজের মধ্যে রয়েছে, জাহাজ বিধ্বংসী (অ্যান্টি-শিপ) রকেট সিস্টেম, আর্টিলারি রকেট, হাউইটজার রকেট, সামরিক ক্ষেত্রে ব্যবহার উপযোগী রেডিও, নাইটভিশনসহ আরও বিভিন্ন অস্ত্র ও গোলাবারুদ।

বাইডেন প্রশাসনের একাধিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, গতকাল বুধবার বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদের সামরিক জোট ন্যাটোর সদর দপ্তরে সদস্যরাষ্ট্রসমূহের বৈঠকে বাইডেন প্রশাসনের এই সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন।

বৈঠকে অস্টিন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় নিজেদের অস্ত্রাগার থেকে কিছু অস্ত্র এই প্যাকেজে সংযোজন করা হবে। আর বাদবাকি অস্ত্রের জন্য প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়কে অর্থ দিতে রাজি হয়েছে ইউক্রেনকে অস্ত্র সহায়তা দানে যুক্তরাষ্ট্রের আইনসভা কংগ্রেসের কমিটি ইউক্রেন সিকিউরিটি অ্যাসিসটেন্স ইনিশিয়েটিভ।

সমরাস্ত্র সহায়তা হিসেবে ইতোমধ্যে ইউক্রেনকে দূরপাল্লার রকেট সিস্টেম দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। আসন্ন সামরিক প্যাকেজে এই সিস্টেমের উপযোগী বেশ কয়েক রাউন্ড এম৭৭৭ হাউইটজার রকেট অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্র পশ্চিমা দেশগুলোর সামরিক জোট ন্যাটোকে ঘিরে দ্বন্দ্বের জেরে সীমান্তে আড়াই মাস সেনা মোতায়েন রাখার পর গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরুর ঘোষণা দেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এই ঘোষণা দেওয়ার দুই দিন আগে ইউক্রেনের রুশ বিচ্ছিন্নতাবাদী নিয়ন্ত্রিত দুই অঞ্চল দনেতস্ক ও লুহানস্ককে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেন তিনি।

আজ বৃহস্পতিবার ১১২তম দিনে পৌঁছেছে ইউক্রেনে রুশ সেনাদের অভিযান। ইতোমধ্যে দেশটির দুই বন্দর শহর খেরসন ও মারিউপোল, দনেতস্ক প্রদেশের শহর লিয়াম এবং মধ্যাঞ্চলীয় প্রদেশ জাপোরিজ্জিয়ার আংশিক এলাকার পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ চলে গেছে রাশিয়ার হাতে। বর্তমানে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ লুহানস্কের সেভারদনেতস্ক শহরে ইউক্রেন সেনাদের সাথে তীব্র সংঘাত চলছে রুশ বাহিনীর।

ইউক্রেনের সেনা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গত প্রায় চার মাস ধরে চলা যুদ্ধে নিজেদের গোলাবারুদের মজুত তলানিতে নেমে এসেছে দেশটির। পশ্চিমা বিশ্বের সহায়তা না করলে ইউক্রেন যুদ্ধে টিকে থাকতে পারবে না।

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //