ইতালিতে চিকিৎসকদের সাহায্যে প্রথম স্বেচ্ছামৃত্যু

৪৪ বছর বয়সী ফ্রেডরিকো কার্বনির গলা থেকে পায়ের পাতা পর্যন্ত পক্ষাঘাতে অসাড় হয়ে গিয়েছিলো। গতকাল বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) চিকিৎসকদের সহায়তায় ওই অসুস্থ মানুষটি স্বেচ্ছায় মৃত্যুবরণ করেন।

চিকিৎসকরা জানান, বিশেষ মেশিনের সহায়তায় তার শরীরে মৃত্যুর জন্য ওষুধ দেওয়া হয়। তার শেষ সময়ে তার বন্ধু ও পরিবারের মানুষরা সামনে ছিলেন।

ইতালির এই নাগরিক আগে ট্রাক চালাতেন। দশ বছর আগে এক দুর্ঘটনায় তিনি পক্ষাঘাতে আক্রান্ত হন। 

স্বেচ্ছামৃত্যু নিয়ে প্রচারণা চালানো লুকা কসিওনি অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, মৃত্যুর আগে কার্বনি বলেছেন, ‘এভাবে জীবন থেকে বিদায় নিতে আমার আক্ষেপ হচ্ছে। কিন্তু বাঁচার জন্য আমি সবরকম চেষ্টা করেছি। আর সম্ভব নয়। শারীরিক ও মানসিকভাবে জীবনের শেষ সীমায় এসে পৌঁছেছি। আমি সমুদ্রে নৌকার মতো ভাসছি। এখন আমি যেখানে খুশি উড়ে যেতে পারব।’

ইতালির আইন অনুসারে, কারো মৃত্যুতে সাহায্য করা অপরাধ। কিন্তু ২০১৯ সালে ইতালির সুপ্রিম কোর্ট কিছু ক্ষেত্রে স্বেচ্ছামৃত্যুর অনুমতি দিয়েছিলো। কিন্তু রোমান ক্যাথলিক চার্চ এবং রক্ষণশীল দলগুলো এর প্রবল বিরোধিতা করে।

স্বেচ্ছামৃত্যুর বিষয়ে আদালত তাদের নির্দেশে বেশ কিছু মানদণ্ড ঠিক করে দিয়েছিল। সেই মানদণ্ড মেনেই একমাত্র চিকিৎসকদের সহায়তায় জীবন দেয়ার অনুমোদন দেওয়া হয়। 

উল্লেখ্য, কার্বনি গত নভেম্বরে এথিক্স কমিটির কাছ থেকে স্বেচ্ছামৃত্যুর অনুমতি পান। -সূত্র: ডয়েচে ভেলে

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //