বাজছে বাইডেনের বিদায় ঘণ্টা!

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আর বেশি দিন বাকি নেই (ছয় মাসেরও কম সময়)। নির্বাচন সামনে রেখে দেশের প্রথা অনুযায়ী গত বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) রাতে সরাসরি বিতর্ক হয় প্রধান দুই প্রার্থী জো বাইডেন ও ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যে। এই বিতর্কে ট্রাম্পের জোরালো বক্তব্যের বিপরীতে অনেকটাই নিষ্প্রভ ছিলেন বাইডেন।

এ নিয়ে ডেমোক্র্যাট ভোটারদের মধ্যে অসন্তোষ ও আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। তাদের অসন্তোষ ও আতঙ্কের মাত্রা এতই প্রবল যে তারা বাইডেনকে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে বলছেন। এমনকি নিজেদের মধ্যে ব্যক্তিগত আলোচনায় বাইডেনের বিকল্প হিসেবে কে দলের প্রার্থী হতে পারেন, তা নিয়ে আলোচনা করছেন।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম পলিটিকো জানিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার  রাতের বিতর্কে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন যে পারফরম্যান্স করেছেন, তাতে ডেমোক্র্যাটরা আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। আতঙ্ক থেকে তারা বাইডেনের বদলে কে নির্বাচন করতে পারেন, তা নিয়ে সক্রিয় আলোচনা শুরু করেছেন।

তিনজন সম্ভাব্য ডেমোক্রেটিক প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর ঘনিষ্ঠ ভোটকৌশলী বলেছেন, বিতর্কে ট্রাম্পের কাছে বাইডেন ধরাশায়ী হলে তাদের কাছে একের পর এক বার্তা আসতে থাকে। এসব বার্তা দলের ভোটার ও অর্থদাতারা পাঠান। আরেকজন ভোটকৌশলী বলেছেন, কিছু বার্তায় তাদের প্রার্থী যেন বাইডেনের বিকল্প হিসেবে এগিয়ে যায় সে আবেদনও এসেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি অঙ্গরাজ্যেই ইতিমধ্যে দু্ই দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী বাছাইয়ের ভোটাভুটি অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিটি অঙ্গরাজ্যেই বাইডেন প্রায় তাঁর সব প্রতিপক্ষকে হারিয়েছেন। তবে এরপরও বাইডেনকে যদি সরে দাঁড়াতে হয় তাহলে ডেমোক্র্যাটরা আরেকটি বড় সমস্যায় পড়বে। তা হলো, বাইডেনের জায়গায় কে আসবেন।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম পলিটিকোর খবর অনুযায়ী, গতকাল রাতের বিতর্কে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন যে পারফরম্যান্স করেছেন, তাতে ডেমোক্র্যাটরা আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। আতঙ্ক থেকে তারা বাইডেনের বদলে কে নির্বাচন করতে পারেন, তা নিয়ে সক্রিয় আলোচনা শুরু করেছেন।

বাম ঘরানার রাজনৈতিক কলাম লেখক নিকোলাস ক্রিস্টফ এরই মধ্যে বাইডেনের বিকল্প হিসেবে কয়েকজনের নাম প্রস্তাব করেছেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক পোস্টে ক্রিস্টফ লিখেছেন, তিনি আশা করেন, বিতর্কে যা ঘটেছে, তা মেনে নেবেন বাইডেন ও তিনি পুনরায় প্রেসিডেন্ট হওয়ার দৌড় থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নেবেন। (ডেমোক্রেটিক পার্টির আসন্ন) সম্মেলনে নতুন প্রেসিডেন্ট প্রার্থী বাছাইয়ের সুযোগ দেবেন।

এখানেই থামেননি কলাম লেখক ক্রিস্টফ। বাইডেনের পরিবর্তে ডেমোক্রেটিক পার্টি থেকে কোন কোন রাজনীতিবিদ প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হতে পারেন, তাদের কয়েকজনের নামও উল্লেখ করেছেন তিনি। তার মতে মিশিগানের গভর্নর গ্রেচেন হোয়াইটমার, ওহিওর সিনেটর শেরোড ব্রাউন বা বাণিজ্যমন্ত্রী গিনা রাইমোন্ডো বাইডেনের জায়গা নিতে পারেন।

তবে নির্বাচনের আগমুহূর্তে বাইডেন সরে যাবেন, এমন সম্ভাবনা নেই। এই বিষয়টি যারা বাইডেনের সমালোচনা করছেন তারাও স্বীকার করছেন।

বাইডেন এত বাজেভাবে কোণঠাসা হলেও তা সামাল দেয়ার চেষ্টা করছে তার প্রচারশিবির। তার একজন উপদেষ্টা বলেছেন, তিনিই একমাত্র ব্যক্তি যিনি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে পরাজিত করেছেন। তিনি এবারও তাই করবেন।

বাইডেন নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াবেন কিনা, এমন প্রশ্ন করা হলে নির্বাচনী প্রচারের এক সহযোগী বলেন, ‘অবশ্যই না।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2024 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //