ভারতে সাড়ে ৭ মাসের মধ্যে সংক্রমণের রেকর্ড

ভারতে করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের প্রভাবে আবারও সংক্রমণের হারও লাফিয়ে বাড়ছে। সেই ধারাবাহিকতায় ভারতে আজ সোমবার (১০ জানুয়ারি) সংক্রমণ পৌনে দুই লাখ ছাড়িয়ে গেছে। যা গতকালের তুলনায় এদিন আক্রান্ত বেড়েছে সাড়ে ১২ শতাংশেরও বেশি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানান হয়।

দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদন অনুযায়ী, গতকাল রবিবার (৯ জানুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে আজ সোমবার (১০ জানুয়ারি) সকাল ৮টা পর্যন্ত ভারতে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন এক লাখ ৭৯ হাজার ৭২৩ জন। এটি গত বছরের ২৭ মের পর সর্বোচ্চ শনাক্ত। সেদিন সংক্রমিত হয়েছিল এক লাখ ৭৯ হাজার ৭৭০ জন। অর্থাৎ সাড়ে সাত মাস পর ভারতে দৈনিক সংক্রমণে রেকর্ড হলো।

এ নিয়ে সংক্রমিত রোগী তিন কোটি ৫৭ লাখ ছাড়ালো। আর করোনায় আক্রান্ত হয়ে এদিন ১৭৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া এদিন ৪১০ জন ওমিক্রনে সংক্রমিত হয়েছেন। এ নিয়ে দেশটিতে ওমিক্রনে সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো চার হাজার ৩৩ জন।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদন বলছে, দৈনিক সংক্রমণের হার বেড়ে হয়েছে ১৩ দশমিক ২৯ শতাংশ। গত ২ জানুয়ারি এই হার ছিল তিন শতাংশের নিচে। মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে পুরো চিত্র বদলে গেছে।

সংক্রমণের পাশাপাশি ভারতে সক্রিয় রোগীর সংখ্যাও বেড়েছে। দেশের মধ্যে মহারাষ্ট্রে দৈনিক কোভিড সংক্রমিতের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে ১২ জনের মৃত্যুসহ নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৪৪ হাজার ৩৮৮ জন। এছাড়া মহারাষ্ট্রে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা দুই লাখ ছাড়িয়ে গেছে। তারপরেই রয়েছে দিল্লি। রাজধানীতে ২২ হাজার ৭৫১ জন সংক্রমিত হয়েছেন। যা গত বছরের মে মাসের পর দৈনিক সংক্রমণের হিসাবে সর্বোচ্চ।

২৪ ঘণ্টায় করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনে সংক্রমিত হয়েছেন ৪১০ জন। ফলে দেশে মোট ওমিক্রন সংক্রমিতের সংখ্যা চার হাজার ছাড়ালো। এখন পর্যন্ত ভারতের ২৭টি রাজ্যে ওমিক্রনের সংক্রমণ ছড়িয়েছে। তার মধ্যে শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র। এই রাজ্যে ওমিক্রন সংক্রমিতের সংখ্যা এক হাজার ২১৬ জন। তারপরে রাজস্থানে ৫২৯ জন, দিল্লিতে ৫১৩ জন, কর্ণাটকে ৪৪১ জন, কেরালায় ৩৩৩ ও গুজরাটে ২৩৬ জন সংক্রমিত হয়েছেন।

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //