অনলাইনে পশু কেনায় উৎসাহ দেয়া হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

আসন্ন ঈদুল আজহায় পশুর হাটে করোনা বিবেচনায় অনলাইন কেনাকাটায় উৎসাহ দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) দুপুরে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে ঈদুল আজহা উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি একথা জানান।

তিনি বলেন, পশুর হাটে স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। অতিমারি চলছে। যেসব গরু ব্যবসায়ী আসবেন তারা যেন স্বাস্থ্যসম্মতভাবে আসেন সে বিষয়ে আমরা নজর রাখব।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কোভিড পরিস্থিতির ওপর লক্ষ্য রেখে পরে যদি কোনো ব্যবস্থা নিতে হয় সেজন্য এবার আগেই সভা করেছি। ঈদের বন্ধের সময় সারাদেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ও নিরাপত্তা বজায় রাখতে জোরদার ব্যবস্থা রাখা হবে। চুরি, ডাকাসিহ ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম বন্ধে গোয়েন্দা নজরদারিসহ পুলিশ-র‌্যাবের টহল বাড়ানো হবে। স্থায়ী ও অস্থায়ী পশুর হাটে নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হবে। করোনা বিবেচনায় অনলাইন কেনাকাটায় উৎসাহ দেয়া হবে।

অস্থায়ী পশুর হাটে অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প বসানো হবে। পশুর হাটে জালনোট শনাক্তকরণ মেশিন, অজ্ঞান পার্টি ও মলম পার্টি যাতে না আসতে পারে সেই ব্যবস্থা করা হবে। ঈদের সময় ব্যবসায়ীদের টাকা পরিবহনের জন্য পুলিশ সহযোগিতা করবে। যানজট নিরসনে আনসার মোতায়েন করা হবে।

যানজটপ্রবণ স্থানে ওয়াচ টাওয়ার থাকবে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যেসব জায়গায় বেশি যানজট হয় যেমন টঙ্গী থেকে গাজীপুরের রাস্তা এবং যমুনা ব্রিজের ওখানে যানজট কমাতে সড়ক পরিবহন বিভাগকে অনুরোধ করেছি। কোরবানির পশু পরিবহনের ট্রাক ও নৌযানে চাঁদাবাজি বন্ধে নজরদারি থাকবে। পশু বোঝাই যান জোরপূর্বক যেকোনো জায়গায় থামানো যাবে না।

ফেরিঘাটে যাতে যানজট না হয় সেজন্য প্রস্তুতি নেয়া হবে, নৌযানে অতিরিক্ত যাত্রী নেয়া যাবে না। এছাড়া ঈদের সময় সড়ক, মহাসড়কসহ যেকোনো জায়গায় দুর্ঘটনা বন্ধে ফায়ার সার্ভিস, অ্যাম্বুলেন্স, কুইক রেন্সপন্স টিম প্রস্তুত থাকবে।

শিল্প এলকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হবে উল্লেখ করে আসাদুজ্জামান খান বলেন, শিল্প এলাকায় নাশকতা বন্ধে গোয়েন্দা বাহিনী সজাগ থাকবে। গার্মেন্টসহ সব শিল্প কারখানার বেতন নির্দিষ্ট সময় দেওয়ার জন্য বিজিএমইএ, বিকেএমইএসহ সংশ্লিষ্টদের আহ্বান জানানো হয়েছে। তারাও নিশ্চয়তা দিয়েছেন সময়মত শ্রমিকদের বেতন দেবেন।

চামড়া বেনাবেচা বিষয়ে তিনি বলেন, চামড়া কেনাবেচনার সিন্ডিকেট রোধে ঈদের আগে চামড়ার দাম নির্ধারণ করে দেয়া হবে। চামড়া পাচার রোধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যবস্থা নেবে। ঈদের সময় নিত্যপণের মূল্য বাড়ানো বন্ধ করতে বা ভেজালরোধে ভ্রাম্যমাণ আদালত থাকবে। ঈদ উদযাপনে ধর্ম মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ যেসব নির্দেশনা দিয়েছে বা দেবে তা মেনে চলার অনুরোধ করা হলো।

পশুর হাটে করোনা নিরাপত্তা বিষয়ে কী ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, লকডাউন বাস্তবায়ন সংস্থা নিরাপত্তা বাহিনী নয়, বাস্তবায়ন সংস্থা স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। আমাদের নিরাপত্তা বাহিনীকে তারা অনুরোধ করছেন, সে অনুযায়ী নিরাপত্তা বাহিনী কাজ করছে। তারা যেখানে লকডাউন করার কথা বলেন, নিরাপত্তা বাহিনী সেখানে কাজ করে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সিটি করপোরেশন এবার হাট নিয়ন্ত্রণ করছে, অনেক হাট বন্ধ করে দিয়েছে। এবার ঢাকায় যত্রতত্র হাট বসতে দেয়া হবে না।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh