বর্ধিত দামে বিক্রি হচ্ছে তেল, পাম্পগুলোতে বাড়তি নিরাপত্তা

পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই মধ্যরাতে হঠাৎ জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির কারণে ভিড় বেড়েছে রাজধানীর তেলের পাম্পগুলোতে। পাশাপাশি অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়াতে নেওয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

আজ শনিবার (৬ আগস্ট) মিরপুর মাজার রোড, টেকনিক্যাল, কল্যাণপুর, আসাদগেট এলাকার একাধিক পাম্পে গিয়ে দেখা গেছে, মোটরসাইকেল ও প্রাইভেট কারের চাপ।

জ্বালানি নিতে আসা রাইড শেয়ার চালক মুজাহিদ বলেন, এ দেশে জনগণের কোনো মতামতের প্রয়োজন হয় না। যখন যার যেটা করতে ইচ্ছে হয় সেটা করছে, যখন ইচ্ছে দ্রব্যমূল্যের দাম বাড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। আগে প্রতিদিন যে টাকা আয় করতাম তা কমে যাবে। তেলের দাম বাড়া মানে আমাদের পেটে লাথি মারা।

রাসেল ইসলাম নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, হুট করে তেলের দাম সরকার এতো বাড়িয়ে দিয়েছে, কী বলব কিছুই বুঝতে পারছি না। দ্রুত যাতায়াতের জন্য মোটরসাইকেল কিনেছি। এখন তেলের খরচ বাড়লে নিয়মিত ক্লাস করতে পারব কিনা জানি না। 

তিনি আরো বলেন, আমাদের কিছু বলার নেই, কারণ আমরা বললে কোনো লাভও হয় না। সাধারণ মানুষের কথায় কিছু যায় আসে না।

আসাদগেট এলাকার সোনার বাংলা পাম্পের নিরাপত্তার দ্বায়িত্বে থাকা পুলিশের এস আই জাহাঙ্গীর কবির সাম্প্রতিক দেশকালকে বলেন, যে কোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবেলায় পাম্পগুলোতে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।

এই পাম্পের ম্যানেজারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি গণমাধ্যমের সাথে কথা বলতে রাজি হননি। তবে পাম্পের আরেক কর্মচারি জানান, চাহিদা অনুয়ায়ী তেল সরবরাহ করা হচ্ছে। তবে হঠাৎ করে দাম বাড়ায় বাড়তি চাপ সামলাতে হিমসিম খাচ্ছেন তারা।

উল্লেখ্য, গতকাল শুক্রবার (৫ আগস্ট) মধ্যরাত থেকে ডিজেল ও কেরোসিন প্রতি লিটারে ৩৪ টাকা বাড়িয়ে ৮০ থেকে ১১৪ টাকা, অকটেন লিটারে ৪৬ টাকা বাড়িয়ে ৮৯ থেকে ১৩৫ টাকা, পেট্রল লিটারে ৪৪ টাকা বাড়িয়ে ৮৬ থেকে ১৩০ টাকা করা হয়েছে।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //