জলকামান থেকে পানি ছিটিয়ে নারিতায় বিমানকে অভ্যর্থনা

দীর্ঘ ১৭ বছর পর জাপানের নারিতা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ট্যাক্সিওয়েতে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ড্রিমলাইনার বোয়িং-৭৮৭ গাঙচিলের অবতরণ করেছে। এসময় জলকামান দিয়ে অভ্যর্থনা জানানো হয়। পরে বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী এম মাহবুব আলীর নেতৃত্বে বিমানের প্রতিনিধি দলকে বিমানবন্দরের লাউঞ্জে স্বাগত জানান নারিতা বিমানবন্দরের কর্মকর্তারা।

আজ শনিবার (২ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় সকাল ৯টায় ঢাকা-নারিতা রুটের বিমানের প্রথম ফ্লাইট বিজি ০৩৭৬ পৌঁছালে জাতীয় পতাকাবাহী বিমানটি টোকিও থেকে ৬০ কিলোমিটার পূর্বে বিমানবন্দরে জলকামানের অভ্যর্থনা দেওয়া হয়। জলকামান অভ্যর্থনা হলো এভিয়েশন সেক্টরের একটি ঐতিহ্যবাহী শিষ্টাচার, যেখানে বিমানবন্দরগুলো নতুন এয়ারলাইনকে সম্মান দেখানোর জন্য উভয় পাশ থেকে জলকামান দিয়ে জলের স্পাউটিং বিমানটিকে ধুয়ে দিয়ে যেকোনো নতুন এয়ারলাইনকে তার ট্যাক্সিওয়েতে স্বাগত জানায়।

লাউঞ্জে এক স্বাগত অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী এম মাহবুব আলী আশা প্রকাশ করেন যে, জাপানের সঙ্গে বিমানের সরাসরি সংযোগ বাংলাদেশ ও জাপানের মধ্যে বাণিজ্য, পর্যটন ও সাংস্কৃতিক বিনিময়ের নতুন দ্বার উন্মোচন করবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাম্প্রতিক টোকিও সফরে দুই বন্ধু প্রতীম দেশ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে কৌশলগত অংশীদারিত্বে উন্নীত করার পাশাপাশি সরাসরি বিমান যোগাযোগ বাংলাদেশ ও জাপানের মধ্যে সম্পর্ককে মূল্য দেবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘নতুন ফ্লাইটটি বাংলাদেশ ও জাপানের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে আরও জোরদার করবে কারণ সরাসরি সংযোগ দুই দেশের মধ্যে জনগণের মধ্যে যোগাযোগ বাড়াবে।’ তিনি আশা প্রকাশ করেন যে, নতুন ফ্লাইটটি বাংলাদেশ-জাপান দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যকে আরও বাড়াবে এবং জাপানি পর্যটকদের বাংলাদেশের আকর্ষণীয় পর্যটন স্পটগুলোতে আকৃষ্ট করবে।

মাহবুব বাংলাদেশি নাগরিকদের পাশাপাশি নেপাল, ভুটান এবং ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোর যাত্রীদের আকর্ষণ করতে নতুন রুটটিকে লাভজনক করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

বিমান বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর এবং সিইও শফিউল আজিম বলেন, ‘নেপাল ও কলকাতার যাত্রীদের আকৃষ্ট করতে বিমান ইতোমধ্যেই নারিতা রুটে ব্যাগেজের বেশি ওজনসহ লোভনীয় প্যাকেজ অফার করেছে।’ 

বিমান প্রধান বলেন, ‘জাতীয় পতাকাবাহী সংস্থা কোড শেয়ারিংয়ের মাধ্যমে জাপান হয়ে অন্যান্য বাহকের সহায়তায় অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিম উপকূল এবং কানাডায় যাত্রী নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করছে।’ 

আজিম বলেন, ‘আমরা অন্যান্য এয়ারলাইনস ইন্টারলিঙ্কিং বা কোড শেয়ারিংয়ের সঙ্গে অনুসন্ধান করছি যাতে আমরা আমাদের যাত্রীদের জাপানের বাইরে ৩৬০ ডিগ্রি এয়ারলাইনের মতো বিভিন্ন রুট অফার করতে পারি।’ তিনি বলেন, বর্তমানে বিমান কোড শেয়ারিংয়ের জন্য জাপান এয়ারলাইন্স লিমিটেড (জেএএল), অল নিপ্পন এয়ারওয়েজ এবং এয়ার কানাডার সঙ্গে কাজ করছে।

জাপানের বিচার মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী ২০২২ সাল পর্যন্ত জাপানে ২০ হাজার ৯৫৪ জন বাংলাদেশি বসবাস করছেন। 

ড্রিমলাইনার ৭৮৭-৮ এবং ৭৮৭-৯ এয়ারক্রাফট দিয়ে বিমান সাপ্তাহিক তিনটি ফ্লাইট পরিচালনা করবে। ঢাকা থেকে প্রতি শুক্র, সোম ও বুধবার এবং নারিতা থেকে প্রতি শনি, মঙ্গলবার ও বৃহস্পতিবার ফ্লাইট ছাড়বে। -বাসস

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2023 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //