মন্দিরের ভেতরে চুম্বন দৃশ্য, নেটফ্লিক্সের বিরুদ্ধে তোপ বিজেপির

মুক্তি পাওয়ার প্রায় এক মাস পরে শিরোনামে উঠে এল মীরা নায়ার পরিচালিত সিরিজ ‘আ স্যুটেবল বয়’। ওই সিরিজের কিছু দৃশ্যে হিন্দু ভাবাবেগে আঘাত করা হয়েছে- এই অভিযোগে বিজেপি নেতা গৌরব তিওয়ারি এফআইআর দায়ের করেছেন অনলাইনে সিনেমা দেখার প্ল্যাটফর্ম নেটফ্লিক্সের বিরুদ্ধে।

ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার জাতীয় সম্পাদক গৌরব টুইটে  লিখেছেন, ‘আ স্যুটেবল বয় সিরিজে, নেটফ্লিক্স তিনটি চুম্বনের দৃশ্য দেখানো হয়েছে। তার মধ্যে একটি পর্বে, মন্দিরের ভিতর একটি চুম্বনের দৃশ্য দেখানো হয়েছে’। 

তিনি প্রশ্ন তুলেছেন, হিন্দু মেয়ের সাথে মুসলিম ছেলের প্রেমের গল্পে সব চুম্বন দৃশ্যই কেন মন্দির প্রাঙ্গণের ভিতর দেখানো হয়েছে। মধ্যপ্রদেশের রেওয়ায় তিনি এফআইআর দায়ের করেছেন।

গৌরব জানিয়েছেন, চুম্বন দৃশ্যের বিরোধিতা তিনি করছেন না। কিন্তু মন্দিরে আরতি চলাকালীন সেই দৃশ্যগুলি শ্যুট করা নিয়ে তিনি আপত্তি জানিয়েছেন। নির্মাতাদের উদ্দেশে তিনি প্রশ্ন তুলেছেন, মসজিদে আজান চলাকালীন এমন দৃশ্য শ্যুট করতে পারতেন? এতটা শৈল্পিক স্বাধীনতা কি পাওয়া যেত? হিন্দুদের সহিষ্ণুতাকে তাদের দুর্বলতা ভাববেন না। এতে শুধু মধ্যপ্রদেশেরই নয়, ভগবান শিব ও তার কোটি কোটি ভক্তের আবেগকে অপমানিত করা হয়েছে। আপনাদের ক্ষমা চাওয়া উচিত।

এদিকে এ অভিযোগ ওঠার পর তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে মধ্যপ্রদেশের বিজেপি সরকার।

নেটফ্লিক্স ভারতে ‘হিন্দুবিরোধী’ কনটেন্ট প্রচার করছে এই অভিযোগ অবশ্য বেশ কিছুদিন ধরেই তোলা হচ্ছে। তবে পর্যবেক্ষকরা অনেকেই মনে করছেন, নেটফ্লিক্সসহ বিভিন্ন অনলাইন প্ল্যাটফর্মকে সে দেশে যেভাবে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করা হচ্ছে সেটা শিল্পের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ ছাড়া কিছুই নয়।

বিক্রম শেঠের বিখ্যাত উপন্যাস ‘আ স্যুটেবল বয়’ নিয়ে একটি ছয় পর্বের টেলিভিশন ড্রামা কমিশন করেছিল বিবিসি- যা নির্মাণ করেছেন চিত্রনির্মাতা মীরা নায়ার। এই সিরিজ ২৩ অক্টোবর নেটফ্লিক্সে মুক্তি পেয়েছে। টাবু, ঈশান খট্টর, তানিয়া মানিকতলা, রসিকা দুগ্গল মতো অভিনেতাদের দেখা যাচ্ছে এই সিরিজে।

সমালোচকরা বলছেন, সিরিজের একটি দৃশ্যে মধ্যপ্রদেশের মহেশ্বর শহরের এক প্রাচীন হিন্দু মন্দিরের প্রাঙ্গণে এক মুসলিম যুবক তার প্রেমিকা এক হিন্দু মেয়েকে চুমু খেয়েছেন- যাতে হিন্দুদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত লেগেছে।

মধ্যপ্রদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নরোত্তম মিশ্রর কথায়, এই সিরিজের কিছুই আমার স্যুটেবল লাগেনি, উচিত মনে হয়নি। মন্দিরের ভেতরে চুম্বন-দৃশ্য ফিল্ম করা হচ্ছে, পেছনে ভজনের সুর বাজছে- এটাকে আমি মানতে পারছি না। অন্য কোনও জায়গাতেও তো এসব করা যেত।

রাজ্য সরকার আরও জানিয়েছে, পুলিশকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে, এই অভিযোগের তদন্ত করার এবং আ স্যুটেবল বয়ের নির্মাতাদের বিরুদ্ধে কী ধরনের আইনি পদক্ষেপ নেয়া যায়, সেটা খতিয়ে দেখার।

এর আগেও লায়লা, সেক্রেড গেমস ইত্যাদি বিভিন্ন সিরিজের কারণে নেটফ্লিক্স ভারতে হিন্দুত্ববাদীদের আক্রমণের মুখে পড়েছে।

খুব সম্প্রতি নেটফ্লিক্সসহ বিভিন্ন অনলাইন প্ল্যাটফর্মকেও সেন্সরশিপের আওতায় আনার উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। -আনন্দবাজার পত্রিকা ও বিবিসি

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh