সকাল ১০টার মধ্যে জাবির হল ছাড়ার নির্দেশ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) প্রশাসন আজ সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগ করার নির্দেশ দিয়েছে। অন্যথা আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে সতর্ক করা হয়েছে।

গতকাল রবিবার (২১ ফেব্রুয়ারি) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২০ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় কিছু সংখ্যক শিক্ষার্থী সরকারি নির্দেশ অমান্য করে কোনো কোনো আবাসিক হলে অবস্থান নিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদেরকে ২২ তারিখ সকাল ১০টার মধ্যে হল ত্যাগের নির্দেশ দিচ্ছে। অন্যথায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য হবে।

করোনাভাইরাসের প্রকোপ শুরুর পর সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মতো জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ও গতবছর ১৭ মার্চ বন্ধ ঘোষণা করা হয়। সেইসাথে ক্যাম্পাসে দর্শনার্থী প্রবেশ ও সব ধরনের অনুষ্ঠান ও জমায়েত নিষিদ্ধ করে কর্তৃপক্ষ। হল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় শিক্ষার্থীদের বেশিরভাগ বাড়ি ফিরে গেলেও তাদের একটি অংশ বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশের গেরুয়া, আমবাগান, ইসলামনগরসহ বিভিন্ন গ্রামে বাসা ভাড়া ও মেসে থাকতে শুরু করেন। এছাড়া জুলাই থেকে অনলাইনে ক্লাসও শুরু হয়।

এরমধ্যে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় গেরুয়া এলাকায় স্থানীয়দের সঙ্গে সংঘর্ষ বাঁধলে অন্তত ৩০ জন শিক্ষার্থী আহত হন। ক্রিকেট টুর্নামেন্টকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করে স্থানীয়রা। অন্তত ১১ জন শিক্ষার্থী গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। স্থানীয় বাসিন্দা ও শিক্ষার্থীদের এমন সংঘর্ষে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে পুরো এলাকায়।

হামলা ও সংঘর্ষের পর স্থানীয় মেসগুলোতে অবস্থান করতে নিরাপত্তার অভাব দেখিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলো খুলে দেয়ার দাবি জানান শিক্ষার্থীরা। তবে সরকারের নির্দেশনা ছাড়া হল খোলা সম্ভব নয় বলে সাফ জানিয়ে দেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এরপরই সবগুলো আবাসিক হলের তালা ভেঙে হলে প্রবেশ করেন শিক্ষার্থীরা।

এরপর থেকেই মূলত ছেলেদের সবগুলো হলে শিক্ষার্থীরা অবস্থান করতে শুরু করেন।

অন্যদিকে মেয়েদের হলগুলোর তালা ভেঙে ঢোকার পর আবার সবগুলো হলে তালা ঝুলিয়ে দেয় সংশ্লিষ্ট হল প্রশাসন। তবে পুনরায় হলে ঢোকার লক্ষ্যে আন্দোলনের ঘোষণা দিয়ে রেখেছেন নারী শিক্ষার্থীরা। এই লক্ষ্যে আজ দুপুর ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন চত্বরে এক জমায়েতের ঘোষণাও দিয়েছেন তারা। তবে তার আগেই হল ছাড়ার হুকুম জারি করলো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এছাড়া রবিবার দুপুরে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন চত্বরে সংবাদ সম্মেলন করে ছয় দফা দাবি তুলে ধরেন। দাবিগুলো হল- হামলার সাথে জড়িতদের নামে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মামলা করা, শিক্ষার্থীদের মধ্যে যারা এখনও গেরুয়া এলাকায় অবস্থান করছেন, তাদের পুলিশি নিরাপত্তা দিয়ে ক্যাম্পাসে ফিরিয়ে আনা, হল খুলে দিয়ে সকল সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করা, হামলার সময় যারা আহত হয়েছেন, তাদের পাশাপাশি যারা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন, তাদের ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করা, ক্যাম্পাস ও আশেপাশের সকল শিক্ষার্থীর দায়িত্ব নেয়া ও ক্যাম্পাসে অস্থিতিশীলতা তৈরির দায়ভার বহন করা।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh