চবিতে ছাত্রী নিপীড়নের ঘটনায় জাবিতে মানববন্ধন

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এক নারী শিক্ষার্থীকে যৌন হেনস্তার ঘটনায় মানববন্ধন করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

চার দফা দাবিতে আজ শনিবার (২৩ জুলাই) বিকেল ৪টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার সংলগ্ন সড়কে মানববন্ধন করেন তারা। 

শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো হলো- নিপীড়নকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে, সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও কর্মস্থলে যৌন নিপীড়নবিরোধী সেল গঠন ও কার্যকর করতে হবে, মানসিক স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের ব্যবস্থা করতে হবে, জাবি, চবিসহ সকল বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রীদের হলে প্রবেশের সময়সীমার প্রথা বাতিল করতে হবে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান-কর্মস্থলসহ সর্বত্র নারীর নিরাপত্তা সরকারকে নিশ্চিত করতে হবে।

মানববন্ধনে ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী মৌটুসী জুবায়দা রহমান বলেন, ‘চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘটে যাওয়া ন্যক্কারজনক ঘটনার প্রতিবাদে আজকে আমরা দাঁড়িয়েছি। আমাদের দাবি-দাওয়ার সাথে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দাবির মিল রয়েছে। রাত ১০ টার মধ্যে হলে প্রবেশ করতে হবে এটা প্রহসন ছাড়া কিছু না। প্রতিনিয়ত নারীর প্রতি সহিংসতা, নিপীড়ন হচ্ছে। আমাদের রাষ্ট্র, সমাজ,বিবেকবোধ কোথায় গিয়ে ঠেকছে? নিরাপত্তার দোহাই দিয়ে নারীদের তাড়াতাড়ি ঘরে ফিরতে বলা হাস্যকর। আমরা চাই শুধু দোষীদের গ্রেপ্তার না, বিচারহীনতার এই সংস্কৃতি বন্ধ হোক।’

জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সৌমিক বাগচী বলেন, ‘ক্ষমতাসীনদের ছত্রছায়ায় কিভাবে ঘটনাগুলো ঘটছে তা সবাই অবগত। পদ্মা সেতুর নাটবল্টু খুললে তড়িৎ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে কিন্তু যেসব ঘটনায় আরো দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া উচিত সেখানে আমাদের আইন তার গতি হারায়। দোষীদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেলেও তাদের বাঁচানোর চেষ্টা চলছে।’

বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদের সভাপতি রাকিবুল রনি বলেন, ‘যদি ঐ নারী ভয় পেতো তাহলে এই ঘটনা ধামাচাপা পরে যেতো। যদি এই ঘটনা পঞ্চগড়ে বা রাঙামাটিতে হতো তাহলে এই ঘটনা কেউ জানতো না। এই অবস্থা কেন? কারণ এই সমাজ, এই দেশ নারীকে সন্ধ্যার পর ঘরে ঢুকিয়েই দায়িত্ব শেষ করতে চায়। নারীর পোশাক নিয়ে সরকার, দেশ, সমাজ প্রশ্ন তুলতো। জাহাঙ্গীরনগরে আমরা দেখেছি রাত দশ টার পর হলে ঢুকার কারণে প্রশাসন তার পরিবারের কাছে নালিশ জানায়। একজন উচ্চ শিক্ষিত ব্যক্তি যদি এই আচরণ করে তাহলে বাকিরা কি করবে? জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে এমন একটি ঘটনার বিচারের জন্য আমাদের ৩৭ দিন মিছিল করতে হয়েছে। বিচারের জন্য কেন বারবার রাস্তায় নামতে হবে? আমরা চাই এই নিকৃষ্টতম ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া হোক।’

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //