ভর্তিচ্ছুদের সহায়তায় জাবিতে রোভার স্কাউটের সেবামূলক কার্যক্রম

নীলাভ ধূসর শার্ট-গাঢ় নীল রঙের প্যান্ট; গলায় সবুজ বর্ণের রুমাল পরে সেবার মনোভাব নিয়ে ছোটাছুটি করছে একদল স্বেচ্ছাসেবক, সেবা দিচ্ছে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের।

বলছি আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন রোভার স্কাউটের কথা। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ২০২১-২২ সেশনে ভর্তি পরীক্ষায় নিয়ম শৃঙ্খলা রক্ষায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে সংগঠনটি। সেবার মূলমন্ত্র ধারণ করে লর্ড ব্যডেন পাওয়েলের হাতে ১৯০৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় সংগঠনটি।

পরীক্ষার্থীদের সারিবদ্ধভাবে কেন্দ্রে প্রবেশ করানো, প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া, অসুস্থ শিক্ষার্থীদের সেবা প্রভৃতি সেবামূলক কাজ করে যাচ্ছে তারা। শারীরিক প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের সিঁড়ি বেয়ে পরীক্ষার কক্ষে নিয়ে যেতে সাহায্য করতে দেখা যায় তাদের।

তবে এই সংগঠনটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ করে থাকে ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে। লাখ লাখ ভর্তিচ্ছু পরীক্ষার্থী এই সবুজ নীড়ে একটি আসনের জন্য ছুটে আসে দূর-দূরান্ত থেকে। তাদের পরীক্ষা চলাকালীন যেন কোনো প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে এবং কেউ যেন পরীক্ষায় অসৎ উপায় অবলম্বন করতে না পারে সেই বিষয়ে তারা থাকে খুবই সচেষ্ট। শৃঙ্খলা রক্ষা তাদের প্রধান কাজ হলেও পরীক্ষার্থীদের পথনির্দেশনা দেয়া, জরুরি প্রয়োজনে দেরিতে আসা পরীক্ষার্থীর জিনিসপত্রের ব্যবস্থাও কখনো কখনো করে দেয় স্কাউটরা। 

জাবি রোভার স্কাউটের সিনিয়র রোভার মেট (এস আর এম) মুহিবুর রহমান মুহিব জানান, আমরা দেশসেবার মনোভাব নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন শৃঙ্খলা রক্ষা ও শিক্ষার্থীদের সুশৃঙ্খলভাবে সময়মত পরীক্ষার হলে প্রবেশ ও বের করতে কাজ করে যাচ্ছি।

জাবিতে পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থী ইফতেখার আমিন বলেন, ভর্তি পরীক্ষা দিতে এসে পরীক্ষার হল খুঁজে পাচ্ছিলাম না। পরে স্কাউট সদস্যরা আমাকে কেন্দ্রে পৌঁছাতে সহায়তা করেন।

সেবামূলক কাজের অনুভূতি সম্পর্কে স্কাউট সদস্য খায়রুল হাসান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে আসার পর থেকেই স্কাউটের সাথে যুক্ত আছি। শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন সমস্যা সমাধান করা, বিপদ আপদে এগিয়ে আসা, সামাজিক নেতৃত্ব তৈরিতে স্কাউটের ভূমিকা অগ্রগণ্য। 

এই ব্যাপারে রোভার স্কাউট লিডার (আরএসএল) সরকার ও রাজনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ কামরুজ্জামান বলেন, তিন ইউনিটে মোট ১২০ জন সদস্য নিয়ে রোভার স্কাউট গঠিত। এবছর ভর্তি পরীক্ষায় নিরাপত্তা নিশ্চিতের লক্ষ্যে চাহিদা অনুযায়ী ৯টি কেন্দ্রে সক্রিয় রয়েছে ৬০ সদস্য কাজ করে যাচ্ছে। 


স্কাউট খায়রুল হাসানের কাছে আমরা জানতে পারি তাদের কার্যক্রম পরিচালনায় দুই/একটি ব্যতিক্রম ছাড়া কোনো সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়নি তাদের। ওই ক্ষুদ্র ব্যতিক্রমগুলোকেও আসলে সমস্যা বলে মনে করেন না তিনি।

স্কুল-কলেজ থেকেই আমরা সবাই স্কাউট সম্পর্কে অবগত। যা বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে পরিসরে আরো বড় হয়, স্কাউটদের দায়িত্বও আগের তুলনায় বেড়ে যায়। ঠিক একইভাবে এই দায়িত্ব কাঁধে নিয়ে সেবার ব্রত নিয়ে এগিয়ে চলছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় রোভার স্কাউট শাখা। 

প্রসঙ্গত, জাবিতে স্কাউট আন্দোলন মূলত শুরু হয় ১৯৮১ সালে। সেই থেকেই প্রতিবছর বিশ্ববিদ্যালয় দিবস, নারী দিবস, স্বাধীনতা ও বিজয় দিবসসহ অন্যান্য দিবসগুলোতে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেন তারা। 

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //