মুখোশ পরে ছাত্রলীগ কর্মীদের মারধর, আহত ৩

আ‌ধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শেরে বাংলা হলে ঢুকে তিন ছাত্রলীগ নেতা‌কর্মীকে কুপিয়ে এবং পিটিয়ে জখম করেছে হেলমেট প‌রি‌হিত একদল যুবক। এই ঘটনায় গুরুতর আহত দুই ছাত্রলীগ নেতাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) ভোরে ফজরের আজানের পরে হলের ৪০১৮ নম্বর কক্ষে এই ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন- বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের একাংশের নেতা ম্যাথম্যাটিক্স বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্র মহিউদ্দিন আহমেদ শিফাত, লোকপ্রশাসন বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্র জিএম ফাহাদ ও জেহাদুল ইসলাম।

এই ঘটনায় হামলাকারী হেলমেট পরিহিতদের চিহ্নিত করা এবং ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করেছে হল প্রশাসন। শেরে বাংলা হলের প্রভোস্ট আবু জাফর মিয়া এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আহত ছাত্রলীগ নেতা মহিউদ্দিন আহমেদ শিফাত জানান, ফজরের আজানের পর সাড়ে ৫টার দিকে ১০-১৫ জনের একদল যুবক হেলমেট প‌রি‌হিত অবস্থায় হলের দরজায় ধাক্কা দেয়। দরজা খুলতেই হেলমেট পরিহিতরা অতর্কিতভাবে হামলা করে।

এসময় হামলাকারিরা অন্য রুমগুলোর দরজা বাইরে থেকে আটকে দেয়। পরে তারা ম‌হিউদ্দিন আহম্মেদ শিফাতকে রুম থেকে টেনেহিঁচড়ে বের করে হাতু‌ড়িপেটা এবং জিএম ফাহাদের হাত ভেঙে দেওয়ার পাশাপা‌শি তাকে কু‌পিয়ে জখম করে। এছাড়া জেহাদুল ইসলামকে পিটিয়ে আহত করে তারা। পরে আহত অবস্থায় দুইজনকে ব‌রিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত জিএম ফাহাদ বলেন, হামলাকারিরা সকলেই হেলমেট পরা ছিলো। তবুও তাদের কয়েকজনকে শনাক্ত করতে পেরেছি। আলীম সালেহীন, অমিত হাসান রক্তিম, ‌রিয়াজ মোল্লা, সৈয়দ জিসান আহম্মেদ ও বাকির নেতৃত্বে এই হামলা হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

জানা গেছে, মহিউদ্দিন আহমেদ শিফাতসহ আহতরা সবাই বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ অনুসারী। এছাড়া যাদের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ তাদের মধ্যে আলীম সালেহীন, সৈয়দ জিসান আহম্মেদ ও রিয়াজ মোল্লা সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহর অনুসারী এবং অমিত হাসান রক্তিম পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুখ শামীমের অনুসারী ছাত্রলীগ নেতা।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের দক্ষিণ বিভাগের উপ-কমিশনার আলী আশরাফ ভূঞা বলেন, আহতদের সাথে কথা বলে‌ছি। তবে হামলাকা‌রী কারা তা এখনো নি‌শ্চিতভাবে জানা‌ যায়নি। আহতরা সুস্থ হলে ভালোভাবে ঘটনা সম্পর্কে জানা যাবে। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের শেরে বাংলা হলের প্রভোস্ট আবু জাফর মিয়া বলেন, আহতদের সাথে কথা বলেছি। তারা বিভিন্ন অভিযোগ করেছে। তবে একজনের মুখের কথায় কোন ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব না।

তিনি বলেন, ক্যাম্পাসের পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত। এই ঘটনার তদন্তে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত রিপোর্ট পেলে পেবরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2023 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //