পতনের পর ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে পুঁজিবাজার

দরপতন থেমে সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে দেশের পুঁজিবাজারে লেনদেন। ফলে সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসে উভয় বাজারে সূচক ও অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ারের দাম বেড়েছে।

এদিন দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক বেড়েছে ১৩ পয়েন্ট। অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক বেড়েছে ৯৩ পয়েন্ট। সূচক বাড়লেও শেয়ার বিক্রির চেয়ে কেনার প্রবণতা বেশির থাকায় কমেছে লেনদেন।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) সূচক বাড়লেও এর আগের দুদিন অর্থাৎ রবি ও সোমবার বড় দরপতন হয়েছে পুঁজিবাজারে। তার আগে টানা ছয় কার্যদিবস সূচক বেড়েছিল।

ডিএসইর তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার ডিএসইতে ৩৭৯টি প্রতিষ্ঠানের ২১ কোটি ৬৪ লাখ ৭ হাজার ২৬১টি শেয়ার ও ইউনিট কেনাবেচা হয়েছে। এর মধ্যে ১৬৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে, কমেছে ২৬২টির; অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৩টির দাম।

এদিন ডিএসইর প্রধান সূচক ১৩ দশমিক ৩২ পয়েন্ট বেড়ে ৭ হাজার ৩২ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। তবে ডিএসইএক্স সূচক আগের দিনের চেয়ে কমেছে দশমিক ৩২ পয়েন্ট এবং ডিএস-৩০ সূচক কমেছে দশমিক ৯৩ পয়েন্ট।

ডিএসইতে মঙ্গলবার লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ১১৭ কোটি ৪২ লাখ ৬৯ হাজার টাকার শেয়ার। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ২১৩ কোটি ৪৮ লাখ ৮৬ হাজার টাকার শেয়ার। অর্থাৎ আগের দিনের চেয়ে লেনদেন কিছুটা কমেছে।

ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর শেয়ার। এরপর ছিল বিএসসি, ফরচুন সুজ, স্কয়ার টেক্সটাইল, ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো, পাওয়ার গ্রিড, ওরিয়ন ফার্মা, এপেক্স ফুট, এশিয়া ইনস্যুরেন্স, এবং এসিআই লিমিটেড।

অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৯৩ পয়েন্ট বেড়ে ২০ হাজার ৬৪৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। সিএসইতে ২৯৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে ১৪১টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বেড়েছে, কমেছে ১১৭টির; অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৭টির দাম।

এ বাজারে লেনদেন হয়েছে ২৫ কোটি ৮৮ লাখ ৬০ হাজার ১৫৫ টাকার শেয়ার। এর আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৩৪ কোটি ৭২ লাখ ৪৯ হাজার ৪৪১ টাকার শেয়ার।

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //